মেইন ম্যেনু

অতিরিক্ত পর্নোগ্রাফি দেখা খারাপ কিছু নয়

এক চাঞ্চল্যকর তথ্য প্রমান করল আধুনিক গবেষণা, যেখানে বলা হয়েছে অতিরিক্ত পর্ণোগ্রাফি দেখা আদৌ কোনও নেশা নয়৷ ‘বায়োলজিকাল সাইকোলজি’র একটি রিপোর্টে এই তথ্য প্রকাশিত পেয়েছে৷ গবেষকরা জনিয়েছেন, অতিরিক্ত পর্নোগ্রাফি দেখলে একজনের মস্তিষ্কে এমন কোনও বিশেষত্ব লক্ষ্য করা যায় না যা থেকে তাকে অ্যাডিক্ট বা নেশাগ্রস্ত বলা চলে৷

তাদের গবেষণায় বলা হয়েছে, একজন ড্রাগ অ্যাডিক্ট ব্যক্তির মস্তিষ্কে ড্রাগের ছবি দেখলে যে প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয় তার পুরোপুরি উল্টো প্রতিক্রিয়া দেখা যায় অতিরিক্ত পর্নোগ্রাফি দেখার ক্ষেত্রে৷

একথা সত্যি যে কিছু মানুষকে ‘হাইপার সেক্স্যুয়াল’ আচরণ করতে দেখা যায়৷ তারা অতিরিক্ত পর্নোগ্রাফি দেখেন যার ফলে তাদের সুস্থ সম্পর্ক, কর্মক্ষেত্রে কুপ্রভাব পড়ে৷ কিন্তু নেশার নিউরোলজিক্যাল সংজ্ঞা অনুযায়ী, নেশাগ্রস্তদের মস্তিষ্কে এমনকিছু প্রতিক্রিয়া দেখা যায় যার ফলে মানুষ নিজেদের জীবনের ওপরে ওই নেশার সুফল খুঁজতে চেষ্টা করে৷

গবেষকরা কিছু সংখ্যক পুরুষ এবং মহিলাদের নিয়ে একটি পরীক্ষা করেন৷ তাদের মধ্যে কিছু মানুষ ‘হাইপার সেক্সুয়াল’ শ্রেণির অন্তর্গত৷ তাদের ড্রাগের কিছু ছবি এবং পর্নোগ্রাফির কিছু ছবি দেখানো হয়৷ কিন্তু লক্ষ্য করা যায় ওই সব ব্যক্তিদের মস্তিষ্কের যে পরিবর্তন ড্রাগের ছবিতে দেখা গিয়েছে তার ঠিক বিপরীত প্রতিক্রিয়া দেখা গিয়েছে পর্নোগ্রাফির ছবি দেখানোর সময়৷