মেইন ম্যেনু

অতি-আধুনিক একুশ

অতি-আধুনিক একুশ

শায়মা জাহান তিথি

শোন শোন শোন গাইজ-
দারুণ একটা নিউজ,
শুনলে তুমি অবাক হবে,
টাশকি খাবে হিউজ।

আজকে নাকি শহীদ দিবস
ফেব্রুয়ারির একুশ,
কীভাবে যে করব পালন
শুনেই হবে বেহুঁশ।

সকাল সকাল করব এ্যাটেন্ড
প্রভাতফেরীর মিছিলে,
ফেইসবুকেতে চেকইন দিব
দেখবে যে তা সকলে।

একটুখানি ওয়েস্ট করে
ভ্যালুয়েবল টাইম,
টাইমলাইনে শেয়ার দিব
একুশ নিয়ে রাইম।

পোস্ট করব সেলফি তুলে
শহীদ মিনারটায়;
রাইট সাইডে থাকবে যে মম,
ড্যাড থাকবে বায়।

হাজার খানেক লাইক পাব,
দশ-বারোটা শেয়ার;
দেখুক মানুষ দেশের জন্য
আমার কতো পেয়ার!
লিসেন ড্যুড, লিসেন টু মি
বলা বড়ই ইজি,
আজকে রাতটা থাকবরে ব্রো
ভীষণ রকম বিজি।

হেল্প মি ব্রো, ইফ ইউ নো,
কী ছিল এই দিনে?
ক্যামনে যে যাই শহীদমিনার-
এইটে জানা বিনে?

বদের হাড্ডি সাংবাদিকরা
সামনে পড়ে গেলে,
এক-নাগাড়ে ফেলব বলে
হাসা-খেলার ছলে।

অফ দ্যা রেকর্ড, একটা কথা
বলি কানে কানে,
লিসেন ডিয়ার, ট্রাই টু হিয়ার,
কেউ যেন না জানে।

আমার বাডিজ আগ্রহ নেই
এসব বিষয় জেনে,
কী লাভ বলো পুরোন জিনিস-
নতুন করে টেনে?

তারচে’ বরং ফেসটিভালটা
এঞ্জয় করি খিচে,
ইতিহাসটা থাক না পড়ে-
আস্তাকুড়ের নিচে।