মেইন ম্যেনু

অতীত স্মৃতি জানাবেন ট্রাম্পের সাবেক স্ত্রী

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সাবেক স্ত্রী ইভানা তার তিন সন্তানকে বেড়ে তোলার বিষয়ে স্মৃতিকথা লিখছেন। আগামী সেপ্টেম্বরে তার এই স্মৃতিচারণমূলক বই বাজারে আসবে। বুধবার বইটির প্রকাশক এ ঘোষণা দিয়েছেন।

প্রকাশনা প্রতিষ্ঠান গ্যালারি বুকস বলছে, ‘রেইজিং ট্রাম্প’ নামের বইটি হবে বস্তুনিষ্ঠ ও অরাজনৈতিক। বইটিতে মাতৃত্ব, শক্তিমত্তা ও প্রাণোচ্ছলতার চিত্র উঠে আসবে। আগামী ১২ সেপ্টেম্বর বইটি প্রকাশের জন্য সময় নির্ধারণ করা হয়েছে।

গত বছরের নভেম্বরে তিন বড় সন্তান ডোনাল্ড জুনিয়র ট্রাম্প, ইভানকা ও এরিককে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনী প্রচারণায় ডোনাল্ড ট্রাম্পের প্রতিনিধি হিসেবে দেখা যায়। এ সময় ট্রাম্পের দুই সন্তান তাদের পিতার রিয়েল স্টেট ফার্মেরও দেখাশোনা করেন। তবে বড় মেয়ে ইভানকা ট্রাম্প পিতার নির্বাচনী প্রচারণায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেন।

গ্যালারি বুকস বলছে, বইটিতে ইভানা ট্রাম্প সন্তানদের লালন-পালন, পড়াশোনা, কমিউনিস্ট চেকোস্লোভাকিয়া যুগে নিজের শৈশব, নিউইয়র্কে এসে রোমান্সে জড়িয়ে পড়া এবং একজন ব্যবসায়ী হিসেবে তার সফলতার স্মৃতি তুলে এনেছেন।

৬৮ বছর বয়সী ট্রাম্পের সাবেক স্ত্রী ইভানা এক বিবৃতিতে বলেছেন, প্রতিদিন মানুষ আমার কাছে জানতে চায়, কীভাবে প্রতিভাবান শিশুদের লালন-পালন করেছি। ‘তাদের লালন-পালনের কোনো জাদু ছিল না। আমি কঠোর এবং প্রেমময়ী মা ছিলাম, যে তাদের ডলারের মূল্য শিখিয়েছে, মিথ্যা, প্রতারণা অথবা চুরি করা শেখাইনি। অন্যদের সম্মান করতে শিখিয়েছি।’

চেক বংশোদ্ভূত সাবেক মডেল, স্কি খেলোয়াড় ও ব্যবসায়ী ইভানা ১৯৭৯ সালে ডোনাল্ড ট্রাম্পকে বিয়ে করেন। বেশ কিছু কেলেঙ্কারি ব্যাপক আলোড়ন তোলায় ১৯৯২ সালে বিচ্ছেদের পথ বেছে নেন তারা। এর পর ট্রাম্প মার্কিন অভিনেত্রী মারলা ম্যাপলসকে বিয়ে করেন। কিন্তু দ্বিতীয় স্ত্রীর সঙ্গে মাত্র ৬ বছরের সংসার জীবন কাটে ট্রাম্পের।

১৯৯৬ সালে মডেলিংয়ের জন্য নিউইয়র্কে আসেন স্লোভেনিয়ান বংশোদ্ভূত মডেল মেলানিয়া। দুই বছর পর পরিচয় ট্রাম্পের সঙ্গে। ২০০৫ সালে ঘর বাঁধেন মেলানিয়া-ট্রাম্প। মোট পাঁচটি ভাষায় কথা বলতে পারেন মেলানিয়া। মাতৃভাষা স্লোভেনিয়ান ছাড়াও ইংরেজি, ফরাসি, সার্বিয়ান ও জার্মান ভাষায় অনর্গল কথা বলতে পারেন নতুন ফার্স্ট লেডি।

সূত্র : এনডিটিভি।