মেইন ম্যেনু

অনবদ্য ফিচারে দেশে আসছে গ্যালাক্সি এস ৭ এজ

স্পেনের বার্সেলোনায় ২২ ফেব্রুয়ারি থেকে শুরু হয়েছে ওয়াল্ড মোবাইল কংগ্রেস। প্রযুক্তির এই মেলায় স্যামসাং গ্যালাক্সি সিরিজের নতুন দু’টি ফ্লাগশিপ ফোন অবমুক্ত করেছে। এগুলো হলো গ্যালাক্সি এস৭ এবং গ্যালাক্সি এস ৭ এজ।

স্যামসাং মোবাইল বাংলাদেশ জানিয়েছে, খুব শিগগিরই দেশের বাজারে গ্যালাক্সি সিরিজের এস ৭ এজ অবমুক্ত করা হবে। এজন্য গতকাল রাজধানীর একটি হোটেলে সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়েছিল।

সংবাদ সম্মেলনে ফোনটির আকর্ষণীয় ফিচারগুলো উপস্থাপন করেন স্যামসাং মোবাইল বাংলাদেশের ট্রেইনিং অ্যান্ড সেলস ফোর্স ডেভেলপমেন্ট বিভাগের ম্যানেজার মোহাম্মদ শাহরিয়ার।

স্যামসাং এস ৭ এজে আছে ৫.৫ ইঞ্চির কিউএইচডি সুপার অ্যামোলিড কার্ভড ডিসপ্লে। এস৬ এর পর এস৭ এজেও স্যামসাং বাঁকানো ডিসপ্লে প্রযুক্তি ব্যবহার করেছে। ফোনটির ব্যাক কভারে রয়েছে থ্রিডি গ্লাস। ফোনটিতে আছে ২.৩ গিগাহার্টজের ৪টি ডুয়েল কোর এবং ১.৬ গিগাহার্টজের চারটি কোয়াড কোরের সমন্বয়ে অক্টাকোর প্রসেসর। ফোনটি অ্যানড্রয়েড মার্সম্যালো অপারেটিং সিস্টেম চালিত।

ফোনটিতে রয়েছে ৪ জিবি র‌্যাম। ৩২ এবং ৬৪ জিবি বিল্ট ইন মেমোরি স্টোরেজে ফোনটি বাজারে পাওয়া যাবে। এক্সট্রা মেমোরি কার্ডের সাহায্যে ফোনটির মেমোরি ২০০ জিবি পর্যন্ত বাড়ানো যাবে। এতে ব্যবহার করা হয়েছে ৩৬০০ মিলি অ্যাম্পিয়ার আওয়ারের ব্যাটারির। ব্যাটারিতে দ্রুত চার্জ দেয়ার জন্য এতে ফাস্ট চার্জিং ও ওয়্যারলেস চার্জিং টেকনোলজি রয়েছে। বিশ্বমানের আইপি ৬৮ দ্বারা ফোনটি সুরক্ষিত পানি এবং ধুলো থেকে। ফোনটি ৪ মিটার গভীর পানিতে ৩০ মিনিট পর্যন্ত সচল থাকতে পারবে।

ব্ল্যাক অনিক্স, গোল্ড প্লাটিনাম, হোয়াইট পার্ল এবং সিলভার টাইটেনিয়াম এই চারটি রঙে ফোনটি দেশের বাজারে পাওয়া যাবে।

‘রিথিঙ্ক হোয়াট এ ফোন ক্যান ডু’ – আবার ভাবুন একটি ফোন কি করতে পারে, এই স্লোগানে স্যামসাং গ্যালাক্সি সিরিজের এই ফ্লাগশিপ ফোনটি অবমুক্ত করা হয়েছে।

ফোনটির ডিসপ্লের রেজুলেশন ১৪৪০x ২৫৬০ পিক্সেল। পিক্সেল পার ডেনসিটি ৫৩৪ পিপিআই। গ্লাস প্রটেকশন হিসেবে ফোনটিতে ব্যবহার করা হয়েছে কর্নিং গরিলা গ্লাস ৪। ফোনটির ডিসপ্লে ওরিয়েন্টশনে রয়েছে স্কেল, কম্পাস, স্পিড ডায়াল সহ আরও কিছু অপশন যা আপনার অন্যান্য গ্যাজেটের প্রয়োজনীয়তা পূরণ করবে। ফোনটিতে রয়েছে অলওয়েজ ওয়েক আপ ডিসপ্লে। যা ব্যবহার করে পাওয়ার বাটন না চেপেই সময়, তারিখ, মিসড কল, মেসেজ নটিফিকেশন দেখা যাবে। সারাদিন এই অপশন ব্যবহার করার জন্য ফোনে খরচ হবে মাত্র পাঁচ শতাংশ চার্জ। এর স্পিড ডায়াল অপশনে কোন ফোন নম্বর অ্যাড করে মিটিং মোডে রাখার সুযোগ আছে। ফলে কল আসলে ভাইব্রেশন ছাড়াই লাইট দেখে বোঝা যাবে কলারের পরিচয়। ফোনটির ব্যাক প্যানেলে ফ্ল্যাশ লাইটে রয়েছে লেজার অপশন। যেখানে টাচ করে আপনি ফোনে আসা ইনকামিং কলটি কেটে দিতে পারবেন।

এয়ারক্রাফট গ্রেড অ্যালুমিনিয়াম দিয়ে ফোনটির কাঠামো বানানো হয়েছে। ডকের সাহায্যে ফোনটিতে কোনো ক্যাবল না লাগিয়ে ওয়্যারলেস চার্জ দেয়ার সুবিধা রয়েছে। শিগগিরিই ফোনটির স্মার্ট কভার আসবে বাংলাদেশে। যা ফোনে সংযুক্ত করলে ফোনটি স্মার্ট কভার থেকেই চার্জ গ্রহণ করবে। ওয়্যারলেস চার্জারের সাহায্যে মাত্র ১৫০ মিনিটে ফুল চার্জ দেয়া যাবে।

যখন সব স্মার্টফোন নির্মাতারা ফোনের ক্যামেরায় মেগা পিক্সেল বৃদ্ধির প্রতিযোগিতায় নেমেছে স্যামসাং তখন মেগাপিক্সেল কমিয়ে ক্যামেরার মান বৃদ্ধি করেছে। এতে আছে ১২ মেগা পিক্সেলের ‍ডুয়েল পিক্সেলের ক্যামেরা। এই ক্যামেরার ফোকাল পয়েন্ট ১.৭ । ফলে কম আলোতে ভাল ছবি পাওয়া যাবে। এছাড়াও ফোনের ক্যামেরা মুহূর্তেই সাবজেক্টকে ফোকাস করতে পারে।

এছাড়াও, এতে যেকোনো সাবজেক্ট পুরোপুরিভাবে ধারণ করা যাবে। ফোনটির মাইক্রো মিটার ১.৪ ইউএম। এস৬ তে ব্যবহার করা হয়েছিল ১.১২ মানের মাইক্রো মিটার। শার্প ও ব্রাইট ছবি তোলার অপশনও রয়েছে ফোনটিতে। আছে ৩৬০ ডিগ্রি মোশন প্যানারমা ভিডিও চিত্র ধারণের সুযোগ। পুরোপুরি ডিএসএলআরের বিকল্প না হলেও এই ফোন দিয়ে আপনি তুলতে পারবেন ভালো মানের ছবি।

ক্যামেরার পর স্মার্টফোনের গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হলো গেমিং পারফরমেন্স। ফোনটির গেমিং এক্সপেরিয়েন্সে যুক্ত করা হয়েছে গেম লঞ্চার এবং গেম টুল। গেম টুল ব্যবহার করে গেম খেলার সময় ফোনের কি গুলোকে অকার্যকর করে রাখা যাবে। ফলে গেম খেলার সময় হাতের স্পর্শে হোম বাটনে চাপ গেলে গেম বন্ধ হয়ে যাওয়ার ভয় থাকবে না। আপনি যদি গেম রিভিও লিখতে চান অথবা আপনার পুরো গেমটিকে ধারণ করে রাখতে চান আপনার ফোন মেমোরিতে তাও পারবেন রিয়েল টাইম গেম রেকর্ডিংয়ের মাধ্যমে। রিয়েল টাইম গেম রেকর্ডিং দিয়ে আপনি গেমের প্রতিটি মুহূর্ত গেম খেলার পরেও দেখতে পারবেন। কোন লেভেল সম্পন্ন করার পর এর স্ক্রিন শট নিয়ে তা আপনি শেয়ার করতে পারবেন যেকোনো সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। গেম খেলার সময় ফোনটিকে অতিরিক্ত গরম হয়ে যাওয়া থেকে সুরক্ষা দিতে ও ব্যাটারির চাপ কমাতে ব্যবহার করা হয়েছে আধুনিক প্রযুক্তি।

ফোনটির সাথে রয়েছে গিয়ার ভি আর সংযু্ক্ত করে ভিডিও দেখার সুবিধা। ভি আর সেটের সাহায্যে আপনি ফোনটিকে ৮৫ ইঞ্চির একটি বড় স্ক্রিনে মুভি দেখার আনন্দ উপভোগ করতে পারবেন। এছাড়াও ৩৬০ ডিগ্রিতে ধারণ করা ভিডিও গুলো দেখতে পারবেন শুয়ে থেকেও।

এস৭ এজের সাউন্ড কোয়ালিটি প্রিমিয়াম মানের। ফোনটিতে লেভেল ইউ প্র নামের পরবর্তী প্রজন্মের ব্লুটুথ হেডফোন ব্যবহার করে আপনি পাবেন লাইভ মিউজিক শোনার অনুভূতি। ফোনটির প্রি অর্ডার করা গ্রাহকরা ভার্চুয়াল রিয়েলিটি হেডসেট উপহার হিসেবে পাবেন। যারা ভিআর হেডসেট নিতে চান না তারা পাবেন লেভেল ইউ প্রো হেডসেট।

নতুন ফোন কেনার পর পুরনো ফোনের তথ্য নতুন ফোনে স্থানান্তর করা বেশ ঝামেলার কাজ। এই ঝামেলা থেকে রেহাই দিতে এস৭ এজে রয়েছে একটি ফাস্ট ডাটা কেবল যা দিয়ে আপনি উইন্ডোজ ছাড়া যেকোনো ব্র্যান্ডের ফোনের সব ধরণের তথ্য (ফোনবুক, মেসেজ, কল লিস্ট, মিউজিক,ভিডিও,ডকুমেন্ট) বিনিময় করতে পারবেন মাত্র আট থেকে ১০ মিনিটেই।

বাংলাদেশের বাজারে ফোনটির মূল্য সম্পর্কে এখনো কোন নিশ্চিত তথ্য পাওয়া যায়নি। তবে ৭০ হাজার টাকার মধ্যেই ফোনটি পাওয়া যাবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।