মেইন ম্যেনু

“অনিশ্চয়তায় ১২লাখ শিক্ষার্থী, ফল প্রকাশ হবে কি?”

একাদশে ভর্তি’ইচ্ছু শিক্ষার্থীদের ফল প্রকাশে ৩য় দফায় ব্যর্থ হয়েছে ঢাকা শিক্ষ্যা বোর্ড। গত ২৫ জুন ফল প্রকাশের কথা থাকলেও কারিগরি সমস্যার কারনে এখনো তার সমাধান করতে পারেনি বোর্ড। এতে ভর্তির আবেদন কারী ১২ লাখ শিক্ষার্থী অনিশ্চয়তা ও উতকণ্ঠার মধ্যে। সবার একটাই প্রশ্ন ফল প্রকাশ হবে কি?

আজ শনিবার (২৭জুন) সকাল ৮:৩০ মিনিটে ফল প্রকাশ করার কথা ছিল। কিন্তু এখন শিক্ষাবোর্ড বলছে, “ফলাফল প্রক্রিয়ার কাজ চলছে, খুব শীগ্র’ই তা জানিয়ে দেওয়া হবে’। বোর্ড বলছে বুয়েটের আইটি সহায়তার তারা ফলাফল প্রকৃয়ার কাজটি করছে। আবেদন কারী দেশি হওয়ায় এমনটা হচ্ছে বলে জানান, শিক্ষাসচিব নজরুল ইসলাম খান।

শিক্ষা মন্ত্রণালয় ও ঢাকা শিক্ষাবোর্ডের তথ্যানুযায়ী, বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১১টায় ওয়েবসাইটে (www.xiclassadmission.gov.bd ) ফল প্রকাশের কথা ছিল। কিন্তু নির্ধারিত সময়ে ফল প্রকাশে ব্যর্থ হয়ে কর্তৃপক্ষ শনিবার সকাল সাড়ে আট,টায় (৮:৩০) ফল প্রকাশের কথা জানায় একই ওয়েবসাইটে।

এদিকে দফায় দফায় ফলাফল অনিশ্চয়তায় ভর্তি প্রক্রিয়া নিয়েও উদ্বেগ উতকণ্ঠায় রয়েছে অভিভাবক ও শিক্ষার্থীরা। ফল প্রকাশে বিলম্বের কারনে ভর্তির সময় বাড়ার আশঙ্কা রয়েছে। এদিকে বোর্ডের স্মার্ট পদ্ধতির এই ‘হ য ব র ল’ অবস্থা আবারো তাদের সক্ষমতা কে প্রশ্নবিদ্ধ করেছে। বোর্ড বলছে, প্রয়োজনে বিশেষজ্ঞদের সহায়তা নেবো। দ্রুতই ফল প্রকাশ করা হবে। ইতোমধ্যে প্রযুক্তিবিদদের সঙ্গে যোগাযোগ শুরু করেছে শিক্ষা বোর্ড।

উল্লেখ্, বোর্ডের তথ্যানুযায়ী, এবার প্রথম মেধা তালিকায় থাকা শিক্ষার্থীরা ২৭ থেকে ৩০ জুন পর্যন্ত বিলম্ব ফি ছাড়া ভর্তি হতে পারবেন। কলেজগুলোতে আসন খালি থাকা সাপেক্ষে ২ জুলাই দ্বিতীয় মেধা তালিকা প্রকাশ করা হবে।

এর আগে যেসব শিক্ষার্থী অনলাইনে আবেদন করেনি তারা ৯ থেকে ১১ জুলাই পর্যন্ত আবেদনের সুযোগ পাবে, তাদের ফল প্রকাশ করা হবে ১২ জুলাই। কিন্তু ফলপ্রকাশে বিলম্বের কারনে এই সূচিতে পরিবর্তন আসবে বলে বোর্ড সূত্রে জানা যায়। যা ফল প্রকাশের পর জানিয়ে দেওয়া হবে।