মেইন ম্যেনু

অনুতপ্ত ও অনুশোচনায় নব্য জেএমবির তিন ‘নারী জঙ্গি’

কৃত কর্মের জন্য অনুতপ্ত ও অনুশোচনায় রাজধানীর আজিমপুর থেকে গ্রেফতার নব্য জেএমবির তিন নারী সদস্য। গত সোমবার আদালতে এমনি স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন তারা।

জবানবন্দিতে তারা বলেছেন, সেদিনের ঘটনায় আমরা অনুতপ্ত, তাই অনুশোচনা করছি। আমরা আমাদের ওইরকম কাজের জন্য ক্ষমাপ্রার্থী।

তারা আরও বলেন, আমরা ভুল পথে পা বাড়িয়েছিলাম। ভবিষ্যতে এরকম কোনো কাজ করবেন না বলেও অঙ্গীকার করেন তারা।

রাজধানীর আজিমপুরের জঙ্গি আস্তানা থেকে গ্রেফতার জঙ্গি শাকিলের স্ত্রী আরেফিন প্রিয়তি ঢাকা মহানগর হাকিম মাহমুদুল হাসানের আদালতে, তানভীর কাদেরীর স্ত্রী আবেদাতুল ফাতেমা মহানগর হাকিম নুরুন্নবীর আদালতে, জামানের স্ত্রী শাহেলা আরফিন মহানগর হাকিম সাদবীর ইয়াসির আহসান চৌধুরীর আদালতে গত সোমবার স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন।

এ ব্যাপারে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ও কাউন্টার টেররিজম ইউনিটের সহকারী পুলিশ সুপার আহসানুল হক জানান, আজিমপুরের ঘটনায় তারা তিনজনই বিজ্ঞ আদালতে ক্ষমা চেয়েছেন, তাদের কৃত কর্মের জন্য বার বার অনুশোচনা করছেন তারা অতীতে যা করেছেন সবকিছুই ভুল ছিল। তারা এ পথে কখনও আসতে চাননি। তাদের স্বামীরা এ পথে আসার জন্য প্রলুব্ধ করেছেন। এখন তারা সজ্ঞানে বুঝতে পারছেন যা করেছিলেন কোনোটিই সঠিক পথ হতে পারেনা। ইসলাম কখনও এই পথকে সমর্থন করেনা।

সহকারী কমিশনার আরও জানান, তারা ভুল পথ থেকে বের হয়ে সঠিক পথে আসার সুযোগ যেন পান সেটিই আদালতের কাছে প্রার্থনা করেছেন।

ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (মিডিয়া) উপ-পুলিশ কমিশনার মো. মাসুদুর রহমানের কাছে বাংলাদেশে কি পরিমাণ নারী জঙ্গি সদস্য আছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, তাদের সংখ্যা কত তা জানা নেই। তবে একেবারেই নগণ্য। এখন তারা কোনো কাজেই সক্রিয় নয়। তিনি আরও বলেন, আজিমপুরে গ্রেফতার তিন নারী তারাই একজন আরেকজনকে চেনেন। এর বাইরে আর কে কে জড়িত তারা জানেন না। তবে কেউ যদি জড়িত থেকে থাকেন তাদের মাথাচাড়া দিয়ে উঠার কোনো সুযোগ নেই বা কোনো শক্তি সামর্থ নেই।

নারী জঙ্গিদের নেতৃত্ব কে দিচ্ছেন এমন প্রশ্নের জবাবে মাসুদুর রহমান বলেন, এই রকম আমরা কাউকে আজও পাইনি। আর কেউ নেইও।

গত ১১ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যার পর আজিমপুরে জঙ্গি আস্তানার খোঁজ পেয়ে সেখানে অভিযান চালায় পুলিশ। অভিযানে একজন নিহত হন। এ সময় এ তিন নারী জঙ্গিকে আহত অবস্থায় আটক করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে পুলিশ। অভিযান চালাতে গিয়ে নারী জঙ্গিদের ছুরিকাঘাত ও মরিচের গুঁড়ায় সেদিন পাঁচ পুলিশ সদস্য আহত হয়েছিলেন।খবর পরিবর্তনের।