মেইন ম্যেনু

অপরাধ প্রমাণ হলে দোষী পুলিশদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা

পুলিশ সদস্যদের অপরাধে জড়িত থাকার বিষয়গুলো তদন্ত করা হচ্ছে জানিয়ে পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) এ কে এম শহিদুল হক বলেছেন, দোষী পুলিশের বিরুদ্ধে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে। অপরাধ করে কেউই পার পাবে না।

শনিবার দুপুরে সিলেট জেলা পরিষদ মিলনায়তনে প্রবাসীদের অধিকার বিষয়ক আর্ন্তজাতিক সেমিনার শেষে সাংবাদিকদের তিনি এসব কথা বলেন। সকাল সোয়া ১১টায় সিলেট জেলা পরিষদ মিলনায়তনে ‘প্রবাসীদের অধিকার নিশ্চিত করার ক্ষেত্রে প্রশাসনের ভূমিকা’ শীর্ষক সেমিনারে যোগ দেন আইজিপি।

সাংবাদিকের এক প্রশ্নের জবাবে শহিদুল হক বলেন, পুলিশের বিরুদ্ধে শাস্তি দৃশ্যমান হচ্ছে না, একথা ঠিক নয়। বরং যারা দেখেন না, তারা এসব কথা বলেন। অপরাধে যারা জড়িত তাদের পার পাওয়ার সুযোগ নেই।

আইজিপি বলেন, পুলিশের কোনো সদস্য অপরাধ করলে তার দ্বায়িত্ব বাহিনীর নয়, তার একান্ত নিজের। পুলিশ জিরো টলারেন্স নিয়ে অপরাধের বিরুদ্ধে কাজ করছে।

আইজিপি বলেন, দেশে প্রবাসী হেল্প ডেস্ক গঠন করা হয়েছে। ডেস্কের কার্যক্রম পুলিশ হেডকোয়ার্টার থেকে মনিটরিং করা হচ্ছে। প্রবাসীদের কষ্টার্জিত টাকায় দেশের উন্নয়ন হচ্ছে। এজন্য প্রবাসীরা যেন মিথ্যা মামলায় হয়রানির শিকার না হন সেটা নিশ্চিতে এবং তাদের সকল সমস্যার সমাধানে সরকার আন্তরিক।

তিনি জানান, গত ৬ মাসে প্রবাসী ডেস্কে সরাসরি ২৬৯টি অভিযোগ জমা পড়েছে। এর মধ্যে ১৯৮টি নিষ্পত্তি করা হয়েছে। এছাড়া টেলিফোনের মাধ্যমে প্রায় ৭শটি অভিযোগ জমা পড়েছে। এগুলোও নিষ্পত্তি করা হচ্ছে।

শহিদুল হক বলেন, সারাবিশ্বে জঙ্গিবাদের প্রসার লাভ করেছে। বাংলাদেশের পুলিশ জনগণের সহায়তায় জঙ্গিবাদ দাবিয়ে রেখেছে। পুলিশ জঙ্গিদের ধরছে, বিস্ফোরক উদ্ধার করছে। বাংলাদেশ নানা সীমাবদ্ধতার মধ্যেও জঙ্গিবাদ দমন করে এগিয়ে যাচ্ছে। জনগণকে আরো বেশি করে সেবা দেয়ার জন্য সারাদেশে কমিউনিটি পুলিশিংয়ের কমিটি গঠন করা হয়েছে। অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন র‌্যাবের মহাপরিচালক বেনজির আহমদ।

হিউম্যান রাইটস এন্ড পিস ফর বাংলাদেশের সভাপতি মঞ্জিল মোরশেদের সভাপতিত্বে সেমিনারে আরও বক্তব্য দেন- সিলেট জেলা ও দায়রা জজ মনির আহমদ পাটোয়ারী, সিলেটের পাবলিক প্রসিকিউটর মিসবাহ উদ্দিন সিরাজ প্রমুখ।