মেইন ম্যেনু

অপরিচিত কিন্তু প্রয়োজনীয় ফ্রি সফটওয়্যার

কম্পিউটারে সাধারণত পরিচিত বিভিন্ন সফটওয়্যার যেমন অ্যাডোব ফটোশপ, মাইক্রোসফট অফিস কিংবা ইন্টারনেট ব্রাউজারের সফটওয়্যার ইনস্টল করে থাকেন ব্যবহারকারীরা। তবে বেশ কিছু অপরিচিত সফটওয়্যার অনলাইনে রয়েছে, যেগুলো কম্পিউটার ব্যবহারকারীদের কাজে আসবে। অপরিচিত কিন্তু প্রয়োজনীয় এসব সফটওয়্যার ব্যবহার করা যাবে বিনা মূল্যেই।

ডেস্কপট
উইন্ডোজ পিসিতে ভার্চুয়াল ডেস্কটপ এবং বিভিন্ন নজরকাড়া ডিজাইন তৈরি করা যাবে ডেস্কপট সফটওয়্যারটির মাধ্যমে। লিনাক্স চালিত পিসিতে একাধিক ভার্চুয়াল ডেস্কটপ দেয়া থাকায় কোনো সফটওয়্যার লাগে না। কিন্তু উইন্ডোজ পিসিতে একাধিক ডেস্কটপ বা ভার্চুয়াল ডেস্কটপের সুবিধা দেয়া থাকে না। এক্ষেত্রে ডেস্কপট সফটওয়্যার ব্যবহার করে একাধিক ভার্চুয়াল ডেস্কটপ তৈরি করা যাবে এবং প্রতিটি ডেস্কটপে ইচ্ছামতো বিভিন্ন ফাইল আলাদা আলদাভাবে রাখা যাবে। যেমন- একটি ডেস্কটপে কাজের ফাইল, আরেকটিতে এন্টারটেইমেন্ট বা অন্যটিতে অন্যান্য ফাইল আলাদাভাবে সাজিয়ে রাখা যাবে। প্রতিটি ডেস্কটপের জন্য আলাদা ওয়ালপেপার যুক্ত করা যাবে। এছাড়া মাউস ও কিবোর্ড শর্টকার্ট দিয়ে এক ডেস্কটপ থেকে আরেক ডেস্কটপে সহজে যাওয়া যাবে। মোটকথা, উইন্ডোজ কম্পিউটারে একটি ডেস্কটপেই বিনা মূল্যের এই সফটওয়্যারটির সাহায্যে একাধিক ডেস্কটপ তৈরি করে, কাজের ধরন অনুযায়ী প্রতিটি ডেস্কটপে আলাদা আলাদাভাবে ফাইলগুলো সাজিয়ে রাখা ও ব্যবহার করা যাবে। ফলে একাধিক ভার্চুয়াল ডেস্কটপ তৈরি করে কম্পিউটার ব্যবহারে উন্নত ও ভিন্ন ধরনের অভিজ্ঞতা পাওয়া যাবে। ডেস্কপট সফটওয়্যারটি http://dexpot.de ঠিকানা থেকে ডাউনলোড করে ব্যবহার করা যাবে।

রেইনমিটার
উইন্ডোজ অপারেটিং সিস্টেমের কম্পিউটারে রেইনমিটার সফটওয়্যারটি দেবে ডেস্কটপ কাস্টমাইজ করার সুবিধা। ডেস্কটপ কাস্টমাইজ করার সুবিধা উইন্ডোজে সীমিত, তবে সীমিত সুবিধার বাধা ডিঙিয়ে ডেস্কটপ কাস্টমাইজ করা যাবে রেইনমিটার সফটওয়্যারটি সাহায্যে। পুরো ডেস্কটপকে এই সফটওয়্যারটি একটি ‘স্কিন’ হিসেবে রূপান্তর করে এবং এতে সুবিধামতো উইজেট, নোট, অ্যাপ্লিকেশন যুক্ত করা যাবে। মোটকথা কাস্টমাইজের মাধ্যমে কম্পিউটারের ডেস্কটপকে ইউনিক লুক দেওয়ায় সফটওয়্যারটি বেশ কাজে আসবে। এছাড়া সফটওয়্যারটি জায়গা নেয় অনেক কম এবং এটি চালাতে কম্পিউটারে খুব ভালো কনফিগারেশনও লাগে না। সফটওয়্যারটি ডাউনলোড করা যাবে http://rainmeter.net ঠিকানা থেকে।

কিপাস
বিশেষজ্ঞদের মতে, সব জায়গায় একই পাসওয়ার্ড ব্যবহার করাটা ঠিক নয়। কেননা একই পাসওয়ার্ড ব্যবহার করার ঝুঁকিটা হচ্ছে, একটি পাসওয়ার্ড ফাঁস হলে, অন্যান্য ক্ষেত্রের পাসওয়ার্ডগুলোও পুরোপুরি অরক্ষিত হয়ে পড়ে। তাই প্রতিটি ক্ষেত্রে আলাদা পাসওয়ার্ড ব্যবহার করাটাই পাসওয়ার্ড নিরাপত্তার পূর্বশর্ত। কিন্তু ভিন্ন ভিন্ন পাসওয়ার্ড ব্যবহারের ক্ষেত্রে অনেকেরই সমস্যাটা হচ্ছে, এতগুলো পাসওয়ার্ড মনে রাখার বিষয়টা। এক্ষেত্রে সেরা সমাধান এবং খুব প্রয়োজনীয় সফটওয়্যার হচ্ছে কিপাস। পাসওয়ার্ড স্টোরেজের ক্ষেত্রে বিশ্বস্ত হিসেবে নামডাক রয়েছে কিপাস সফটওয়্যারটির। যাবতীয় পাসওয়ার্ড এই সফটওয়্যারটিকে সংরক্ষণ করে, একটি মাস্টারপাসওয়ার্ড দিয়ে তা সুরক্ষিত রাখা যাবে। সফটওয়্যারটি নিরাপত্তা এতটাই শক্তিশালী যে সহজে এটিকে ক্র্যাক করা সম্ভব নয়। যাবতীয় পাসওয়ার্ড নিরাপদ রাখা ও মনে রাখার বিনামূল্যের এই সফটওয়্যারটি পোর্টেবল, ফলে ইনস্টল করার ঝামেলাও নেই। সফটওয়্যারটি http://keepass.com ঠিকানা থেকে ডাউনলোড করা যাবে।

রেকুভা
কখনো নিজের ভুলে আবার কখনো বা অন্যের ভুলে গুরুত্বপূর্ণ ফাইল, ছবি, ভিডিও, অডিও প্রভৃতি মুছে যেতে পারে। তবে এই অনিচ্ছাকৃত ভুল শুধরে নেবার উপায়ও রয়েছে। কেননা ডাটা রিকভারি সফটওয়্যারের কাজই হচ্ছে হারিয়ে যাওয়া ফাইলগুলোকে পুনরুদ্ধার করা। তেমনই খুব দক্ষ একটি ডাটা রিকভারি সফটওয়্যার হচ্ছে রেকুভা। এটি মেমোরি কার্ড, পেন ড্রাইভ, কম্পিউটার, এমপিথ্রি প্লেয়ার থেকে মুছে যাওয়া ফাইলগুলো উদ্ধার করতে পারে। হারানো ডাটা ১০০% উদ্ধার সম্ভব না হলেও, বেশিরভাগ ডাটাই সফটওয়্যারটি পুনরুদ্ধারে সক্ষম। সফটওয়্যারটি www.piriform.com/recuva ঠিকানা থেকে ডাউনলোড করে ব্যবহার করা যাবে।

রেভো আনইনস্টলার
কম্পিউটারে কাজের প্রয়োজনে বিভিন্ন ধরনের সফটওয়্যার ইনস্টল করার প্রয়োজন পড়ে। স্বল্পকালীন সময়ের জন্য ব্যবহার করা বিভিন্ন সফটওয়্যার কাজ শেষে আর প্রয়োজন লাগে না। ফলে অপ্রয়োজনীয় হয়ে যাওয়ায় সফটওয়্যারগুলো আনইনস্টল করা লাগে। কিন্তু আনইনস্টল করার ক্ষেত্রে কম্পিউটারের ডিফল্ট আনইন্সটলার দিয়ে সফটওয়্যারের সব ফাইল অনেক সময় পুরোপুরি ডিলেট হয় না। এ কারণে কম্পিউটারের গতিও অনেক সময় কমতে দেখা যায়। রেভো আনইনস্টলার সফটওয়্যারটি এক্ষেত্রে কাজে দেবে। এর সাহায্যে খুব সহজে যে কোনো সফটওয়্যার কম্পিউটার থেকে পুরোপুরি আনইনস্টল করা যাবে। সফটওয়্যারটি www.revouninstaller.com ঠিকানা থেকে ডাউনলোড করা যাবে। ফ্রি এবং পেইড- দুই ধরনের ভার্সন রয়েছে সফটওয়্যারটির।

৭-জিপ
যারা জিপ ফাইল নিয়মিত ব্যবহার করেন, তাদের উইনজিপের চেয়ে আরো শক্তিশালী সফটওয়্যার দরকার হতে পারে। ফাইল আর্কাইভের সফটওয়্যার হিসেবে ৭-জিপ কাজে আসবে। এই সফটওয়্যারটি সব ফরম্যাটের জিপ ফাইল তৈরি ও খোলায় ব্যবহার করা যাবে। জিপ, রার ফাইল ফরম্যাটসহ এটি প্রায় সব ধরনের সংকুচিত ফাইল ফরম্যাট সমর্থন করে। সফটওয়্যারটি www.7-zip.org ঠিকানা থেকে ডাউনলোড করে ব্যবহার করা যাবে।

তথ্যসূত্র: টাইমস অব ইন্ডিয়া