মেইন ম্যেনু

অপরুপ এক দৃষ্টান্ত, একেই বলে সত্যিকারের ভালবাসা (ছবিসহ)

“ভালবাসা” শব্দটির সাথে অনেকের নেতিবাচক ও ইতিবাচক মনোভাব জড়িয়ে আছে। কারও নিকট এই শব্দের মহত্ত্ব অনেক বেশি, আবার কারও নিকট এটি দুর্বিষহ। অনেকের মনে প্রশ্ন জাগে, সত্যিকারের ভালবাসা কি আদৌ পৃথিবীতে রয়েছে? হ্যাঁ, আজ সত্যি এক অপূর্ব প্রেমের কথা জানাব আপনাদের।

তুরিয়া এবং মাইকেল স্কুলজীবন থেকে একে অপরের সাথে বেড়ে উঠেছে। মাইকেল ছোটকাল থেকে তুরিয়াকে ভালবাসে। তাদের ভালবাসায় নতুন মোর আসে তখন, যখন তুরিয়া একটি ভয়াবহ দুর্ঘটনার শিকার হয়।

lo222

তুরিয়া ২০১১ সালে কিম্বারলেতে ১০০ কিলোমিটার ম্যারাথন দৌঁড়ে বুশফায়ার এর আগুনে পুড়ে যান। তার শরীরের ৬৫ শতাংশ অংশ ক্ষতিগ্রস্ত হয়। সে আগুনে তার ডান হাতের আঙ্গুল পুড়ে যায়। এর জন্য তার ৫ মাস হাসপাতালে থাকতে হয় ও প্রায় ২০০টি সার্জারি করতে হয়।

কিন্তু এরকম মুহূর্তেও মাইকেল তার সঙ্গ ছাড়েনি। তাদের আংটি বদল হয়েছে, যখন তুরিয়া মালদ্বীপের হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন। গত চার বছর ধরে তুরিয়া তার জীবনের সাথে লড়াই করছে, তার সাথে মাইকেলও অত্যন্ত ধৈর্যের সাথে সঙ্গ দিয়ে যাচ্ছেন।

lo333

তুরিয়া বলেন, দুর্ঘটনার পর থেকে তার জীবন সম্পূর্ণ পরিবর্তন হয়ে গেছে। কিন্তু মাইকেলের সাথে তার সম্পর্ক আরও বেশি গভীর থেকে গভীরতর হয়েছে। মাইকেল তাকে পৃথিবীর সেরা সুন্দরী বলে মনে করেন। মাইকেল তার পুলিশের চাকরি ত্যাগ করে, তুরিয়ার দেখাশোনা করার জন্য পশ্চিম অস্ট্রেলিয়াতে চলে এসেছেন।–সূত্র: ইন্ডিয়া টাইম্‌স।