মেইন ম্যেনু

বালিয়াকান্দিতে অবসর ভাতাভোগীদের বসার স্থান সরকারী অফিসের সিড়ি

অবসর মানে বসার স্থান হারিয়ে ফেলা

বাবারে তোমরা ছবি তোল ক্যান, কি করবা। সাংবাদিক পরিচয় দিলেই বলে ওঠেন আমরা বৃদ্ধ মানুষ। পেনশনের টাকা নিতে মাসে একবার আসি, আমাদের বসার জায়গা নেই। সারাদিন বিভিন্ন অফিসের বারান্দায় ও অফিসের সিড়িতে বসে ও দাড়িয়ে থাকতে হয়। এতে অবসরকালীন ভাতা নিতে এসে নানা বিড়ম্বনার শিকার হতে হচ্ছে। আমাদের বসার জায়গা, টয়লেটের কোন ব্যবস্থা নেই।

আপনারা পত্রিকায় লেখেন যাতে জনপ্রতিনিধি ও উপজেলা প্রশাসনের নজরে আসে। সমস্যার সমাধান হলেও হতে পারে। মঙ্গলবার রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দি উপজেলা একাউন্স অফিসে সামনে এভাবেই কথাগুলো বলছিলেন, অবসরকালীন ভাতা নিতে আসা শিক্ষক ও শিক্ষকের স্ত্রী কমেলা বেগম, লুৎফুন্নেছা, নুরজাহান বেগম, আছিয়া খাতুন, ফুলজান বিবি, রোকেয়া চৌধুরী, সুধা রানী বিশ্বাস, শিখা রানী বিশ্বাস।

তারা আরো বলেন, মুক্তিযোদ্ধা ভাতা, সরকারী কর্মকর্তা-কর্মচারী, শিক্ষক,বয়স্ক, বিধবা, অবসর ভাতা ভোগী রয়েছে প্রায় ৭শতাধিক। প্রতিমাসে ভাতা নিতে এসে তাদেরকে নানা ধরনের বিড়ম্বনার শিকার হতে হয়। এ থেকে পরিত্রানের জন্য উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা নির্বাহী অফিসারের পদক্ষেপ কামনা করেছেন।
মুক্তিযোদ্ধা , প্রবীন সাংবাদিক ও লেখক এম.ইকরামুল হক বলেন, বিষয়টি নিয়ে একাধিকবার উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে অনুরোধ জানিয়েছি। তারা আশ্বাস দিলেও কাজের কাজ কিছুই হয়নি।