মেইন ম্যেনু

ঢাকা শিক্ষা বোর্ড

অবৈধ নিয়োগ বাতিল, বৈধ করতে নতুন বিজ্ঞপ্তি

সরকারি নিয়োগবিধি উপেক্ষা করে দেয়া ১০ কর্মচারীর নিয়োগ বাতিল করা হয়েছে। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের এ-সংক্রান্ত নির্দেশ পাওয়ার পরে গত বৃহস্পতিবার নিয়োগ বাতিল করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ শুক্রবার বলেন, “অবৈধ নিয়োগের বিষয়টি আমরা জানতে পেরেছি। বিধি মোতাবেক আইনানুগ ব্যবস্থা নিতে ইতিমধ্যে বোর্ড কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। তা বাতিল করতে বলা হয়েছে।”

এদিকে ওই ১০ অবৈধ নিয়োগ বাতিল হতে পারে ধারণা করে তার আগেই ৪৯টি পদে নতুন করে নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি দিয়েছে ঢাকা শিক্ষা বোর্ড। অবৈধ নিয়োগ পাওয়া ১০ কর্মচারীকে বৈধ করতেই এই নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি দেয়া হয়েছে বলে মন্ত্রণালয়ের সূত্রে অভিযোগ।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কর্মচারীদের অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, গত বছরের জুন মাসে ঢাকা শিক্ষা বোর্ড কর্মচারী ইউনিয়নের সভাপতি হুমায়ূন কবির ও সাধারণ সম্পাদক লোকমান মুন্সির চাপে বোর্ড চেয়ারম্যান মো. আবু বক্কর সিদ্দিক গণমাধ্যমে কোনো ধরনের বিজ্ঞপ্তি না দিয়েই ১০ কর্মচারী নিয়োগ দেন্। এই নিয়োগে অবৈধভাবে লেনদেন হয়েছে প্রায় অর্ধ কোটি টাকা। এই অবৈধ নিয়োগ বাতিল চেয়ে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে আবেদন করেন বোর্ডের ১৫১ জন কর্মকর্তা-কর্মচারী। তাদের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে গত ৬ সেপ্টেম্বর শিক্ষাবোর্ডের কাছে নিয়োগসংক্রান্ত তথ্য-উপাত্ত তলব করে শিক্ষা মন্ত্রণালয়।

কর্মচারীদের অভিযোগে উল্লেখ করা হয়, নিয়োগ পাওয়া ১০ কর্মচারীর মধ্যে তিনজন কর্মচারী ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক মো. লোকমান মুন্সির আপন ভাই।

সভাপতি মো. হুমায়ূন কবিরেরও তিনজন আত্মীয় রয়েছেন বলে অভিযোগপত্রে বলা হয়।

আবেদনটি আমলে নিয়ে শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ সংশ্লিষ্ট শাখাকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশ দেন। এর পরিপ্রেক্ষিতে মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক-১ অধিশাখার উপসচিব মো. মহিবুর রহমান শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান বরাবর নোটিশ ইস্যু করেন। এতে নিয়োগসংক্রান্ত পত্রিকায় প্রকাশিত বিজ্ঞপ্তি, তথ্য-উপাত্ত জরুরি ভিত্তিতে মন্ত্রণালয়ে পাঠানোর জন্য নির্দেশ দেয়া হয়।

ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান মো. আবু বক্কর সিদ্দিক বলেন, “মন্ত্রণালয় থেকে আমাদের কাছে এ-সংক্রান্ত তথ্য-উপাত্ত চেয়েছিল। পরে তাদের নির্দেশে নিয়োগ বাতিল করা হয়েছে।”

নিয়োগ বাতিল হওয়া ব্যক্তিদের আবার নিয়োগ দিতে গত ৩ জানুয়ারি ঢাকা শিক্ষাবোর্ডের চেয়ারম্যান মো. আবু বক্কর সিদ্দিকের সভাপতিত্বে নিয়োগ কমিটির একটি বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। সেখানে সিদ্ধান্ত হয়- বোর্ডের প্রয়োজনীয় জনবল সরকারি বিধি মোতাবেক নতুন করে পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি দিয়ে নিয়োগ দেয়া হবে। সে মোতাবেক সোমবার ৪৯ জনের নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়।

অথচ মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, বর্তমানে শিক্ষা বোর্ডে পর্যাপ্ত কর্মচারী রয়েছেন। তবে ময়মনসিংহ বিভাগ গঠন হওয়ায় প্রধানমন্ত্রী ঘোষণা দিয়েছেন শিগগিরই ময়মনসিংহ শিক্ষা বোর্ড গঠন করা হবে। এ বিষয়টি সামনে রেখে ও কর্মচারী ইউনিয়নের শীর্ষ নেতাদের চাপের কারণে নতুন করে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়। এ নিয়োগে কয়েক কোটি টাকার বাণিজ্য হবে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। তা ছাড়া যাদের নিয়োগ বাতিল করা হয়েছে, এ নিয়োগের মাধ্যমে তাদেরও নিয়োগ বৈধতা দেয়া হবে।

এসব বিষয়ে জানতে চাইলে ঢাকা শিক্ষা বোর্ড কর্মচারী ইউনিয়নের সভাপতি হুমায়ন কবির বলেন, “নিয়োগটি বৈধ ছিল। তার পরও কী কারণে বাতিল করা হযেছে। তার জন্য আমরা আদালতে যাব।”-ঢাকাটাইমস