মেইন ম্যেনু

অভিনয়ের জন্য পারিশ্রমিক নেন না শাহরুখ

দুই দশকেরও বেশি সময়ের ক্যারিয়ারে শাহরুখ খান হিন্দি সিনে জগতে নিজেকে তুলে এনেছেন সেরাদের কাতারে। অভিনয় আর প্রযোজনা থেকে খ্যাতির সঙ্গে অর্থও মিলেছে অঢেল; শাহরুখ আজ ভারতের শীর্ষ ধনী তারকাদের একজন। সেই তিনিই এবার জানালেন, অভিনয়ের জন্য পারিশ্রমিক নেন না কখনোই।

ইন্ডিয়া টিভিতে প্রচারিত ‘আপ কি আদালত’ নামের একটি টিভি শোতে তিনি বলেন, “আমি কখনই সিনেমায় অভিনয়ের জন্য পারিশ্রমিক নেই না। এর বদলে উপস্থাপনা, বিভিন্ন ইভেন্টে কিংবা সরাসরি সম্প্রচারিত অনুষ্ঠান থেকে আয় করি। আমি শুধু সিনেমার নির্মাতাদের বলি, যদি সিনেমাটি বক্স অফিসে ভালো আয় করে, তাহলে তাদের ইচ্ছেমতো সম্মানী আমাকে দিতে।”

তিনি আরো বলেন, “আমি অভিনয়কে ব্যবসা হিসেবে ভাবি না। এটাই আমার সবচেয়ে ভালো লাগে যে আমি সিনেমায় অভিনয় করতে পারছি। আমার সবচেয়ে বড় স্বপ্ন হলো, আরো বেশি মানুষ আমার সিনেমা দেখবে এবং খুশি হবে। সেইসঙ্গে একদিন আমি ভারতে একটি সিনেমা তৈরি করতে পারবো।”

শাহরুখ জানান, সিনেমা তৈরির ক্ষেত্রে একধরণের দেশপ্রেম কাজ করে তারমধ্যে।

“এই ব্যাপারে আমি বেশ দেশপ্রেমী। যখন গোটা বিশ্বের মানুষ একটি সিনেমা দেখবে এবং বলবে যে এই সিনেমাটি ভারতে তৈরী হয়েছে,তখন আমি এটির একটি অংশ হতে চাই।”

অনুষ্ঠানে আরো কিছু বিষয় উঠে শাহরুখের সঙ্গে উপস্থাপকের আলাপচারিতায়। ২২ বছর আগে ‘আপ কি আদালত’ অনুষ্ঠানেই শাহরুখ দাবী করেছিলেন যে, অমিতাভ বচ্চনের চেয়েও বড় অভিনেতা তিনি। এই ব্যাপারে অনুষ্ঠানটির উপস্থাপক রজত শর্মার প্রশ্নের উত্তরে শাহরুখ বলেন, “এটা ছিলো তরুণ হিসেবে আমার অতিরিক্ত আত্মবিশ্বাস।”

অকপটে স্বীকারও করেন ওই বক্তব্যটি ছিল তার ‘শিশুসুলভ ভুল’।

“২২ বছর পর এখন আমি বুঝতে পেরেছি যে আমার কোন ধারণাই ছিলো না যে কীভাবে একজন ভালো অভিনেতা হয়, ওটা ছিলো আমার শিক্ষার অভাবের কারণে। আমার দাম্ভিকতা বেশ শিশুসুলভ ছিলো। এমনকি এই ৫০ বছর বয়সে এসেও আমি মাঝেমধ্যে শিশুসুলভ আচরণ করি।”