মেইন ম্যেনু

অপহরণকারীদের অর্থ দিয়ে

অভিবাসীবাহী নৌকা ফেরত পাঠাল অস্ট্রেলিয়া

অস্ট্রেলিয়ার নৌবাহিনী অপহরণকারীদের অর্থ দিয়ে অভিবাসীবাহী একটি নৌকাকে ফেরত পাঠিয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। নৌকাটি অস্ট্রেলিয়ার দিকে যাচ্ছিল। এতে বাংলাদেশেরও ১০ জন যাত্রী ছিল। তবে জাতিসংঘের শরণার্থী বিষয়ক সংস্থা (ইউএনএইচসিআর) বলছে, এ ঘটনা অন্য দেশগুলোকে ‘ভুল বার্তা’ দেবে।
শুক্রবার বিবিসির এক সংবাদে এসব তথ্য জানা গেছে।

ইএনএইচসিআরের মুখপাত্র জেমস লিঞ্চ শুক্রবার বিবিসিকে বলেন, ওই নৌকাটি আটকের পর যাত্রীরা অপহরণকারীদের অর্থ দিতে দেখেছেন। শুক্রবার অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী টনি অ্যাবোট অভিবাসীবাহী নৌকার আগমন ঠেকাতে ‘সৃষ্টিশীল’ কৌশলের কথা বলেন। তবে তিনি এ কৌশলের ব্যাপারে বিস্তারিত বলেননি। আবারও অর্থ দেওয়ার বিষয় নিয়েও কোনো মন্তব্য করেননি।

জেমস লিঞ্চ আরও জানান, গত ৩১ মার্চ ইন্দোনেশিয়ার নৌবাহিনী নৌকাটিকে উদ্ধার করে। তিনি বলেন, ‘আমরা নৌকাটির ৬৫ জন যাত্রীর সঙ্গে কথা বলেছি এবং তাঁরা নৌকার ক্রুদের অর্থ দেওয়ার কথা আমাদের বলেছেন।’

অন্য দেশের প্রতি ‘ভুল বার্তা’
ইউএনএইচসিআরের মুখপাত্র জেমস লিঞ্চ আরও বলেন, জাতিসংঘ দেশগুলোকে অভিবাসী নৌকাগুলোকে তীরে ভিড়তে দেওয়ার ব্যাপারের তাঁদের সম্মতি আদায়ের চেষ্টা করছে। সেখানে অস্ট্রেলিয়ার এই পদক্ষেপ মিয়ানমার, ইন্দোনেশিয়া, মালয়েশিয়া ও থাইল্যান্ডের পাশাপাশি এ অঞ্চলের অন্য দেশগুলোকে ভুল বার্তা দেবে। তিনি আরও বলেন, অস্ট্রেলিয়া জাতিসংঘের চুক্তি স্বাক্ষরকারী দেশ। সে অনুযায়ী তাদের অভিবাসীদের প্রয়োজন অনুযায়ী সহায়তা দেওয়ার কথা।
ইন্দোনেশিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ও এ ঘটনাকে ‘উদ্বেগজনক’ বলে মন্তব্য করেছে। দেশটির নৌবাহিনী বলছে, আটককৃত নৌকার ক্রুরা তাঁদের বলেছেন যে, তাঁদের প্রত্যেককে নৌকাটি ফিরিয়ে আনার জন্য পাঁচ হাজার অস্ট্রেলিয়ান ডলার করে দেওয়া হয়েছে। স্থানীয় পুলিশ প্রধান হিদায়ত এএফপিকে বলেন, তিনি নিজ চোখে ওই টাকা দেখেছেন।