মেইন ম্যেনু

অভিভাবকহীন অটিস্টিক শিশুদের দায়িত্ব সরকারের

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, মা-বাবার অবর্তমানে অটিস্টিক শিশুদের সব ধরনের দায়িত্ব নেবে সরকার। এ জন্য আলাদা প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলা হবে।

শনিবার সকালে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে বিশ্ব অটিজম সচেতনতা দিবস-২০১৬ উপলক্ষে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘ট্রাস্ট ফান্ড গঠন করে তাদের জন্য স্থায়ীভাবে এমন কিছু করতে চাই, যাতে সরকার পরিবর্তন হলেও তা বন্ধ না হয়।’

তিনি বলেন, ‘প্রতিবন্ধী শিশুদের জন্য সব থেকে কষ্ট করেন মা-বাবা। তারা যখন থাকবেন না তখন তাদের কী হবে? তাদের জন্য সুন্দর একটা পরিবেশ তৈরি করে দিতে চাই। তাদেরকে কেউ যাতে অবহেলা না করে।’

শেখ হাসিনা বলেন, ‘অটিজমসহ সব ধরনের প্রতিবন্ধী শিশুদেরও মেধা ও যোগ্যতা প্রকাশের অধিকার আছে। তাদের সেই সুযোগ দিতে হবে। প্রতিবন্ধী শিশুরা সমাজের বোঝা নয়। প্রতিবন্ধী শিশুরা সুযোগ পেলে অনেক কিছু করতে পারে।’

তিনি বলেন, ‘প্রতিবন্ধীরা এখন ক্রিকেটসহ নানা খেলায় চ্যাম্পিয়ন হয়ে আসছে। গোল্ড বা রুপা নিয়ে আসছে। একসময় মানুষের কাছে তাদের হেয় হতে হতো। এখন সেই সুযোগ নেই। থাকা উচিত না।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমি প্রতিবন্ধীদের বানানো কার্ড দিয়ে ঈদের শুভেচ্ছা জানাই। এদের মধ্যে যে সুপ্ত মেধা আছে, তা বিকশিত করার সুযোগ করে দিচ্ছি।’

প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের কাজের প্রতি একাগ্রতা থাকে অনেক বেশি এবং কর্মক্ষেত্রে তাদের উপস্থিতিও অন্যদের তুলনায় সন্তোষজনক বলে জানান তিনি। অটিস্টিকসহ সব ধরনের প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের নিয়োগের জন্য বেসরকারি সংস্থার প্রতি আহ্বান জানান তিনি।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘অটিস্টিক বা প্রতিবন্ধীরা আর কষ্টে থাকবে না। তাদের জন্য আমরা উদ্যোগ নিচ্ছি। এটা রাষ্ট্রেরও কর্তব্য। কিন্তু দেখা যায় সরকার পরিবর্তনের সঙ্গে সঙ্গে এসব পদক্ষেপ বন্ধ হয়ে যায়। যেমন কমিউনিটি ক্লিনিকের মতো সেবাকেন্দ্র বন্ধ করে দেওয়া হয়েছিল।’

সকলের সমন্বিত উদ্যোগ ও উপযোগী পরিবেশ অটিজম ব্যক্তিদের স্বাবলম্বী হিসেবে গড়ে তুলতে সহায়তা করবে বলেও আশা প্রকাশ করেন তিনি।