মেইন ম্যেনু

অভিষেকেই তাদের বাজিমাত

বলিউডের ইতিহাসে এই পর্যন্ত অনেক ঘটনাই ঘটেছে। বলিউডকে কেন্দ্র করে রটেছে অনেক গুজবও। অনেকেই এই বলিউডের সিনেমায় অভিনয় করে পেয়েছেন চূড়ান্ত খ্যাতি।

তবে আশ্চর্যের বিষয় হলো- অনেক অভিনয়শিল্পীরা বলিউডে এসে রাতারাতি সাড়া ফেলেছেন দর্শকমহলে। এমন অনেক অভিনয়শিল্পী রয়েছেন যারা প্রথম সিনেমায় যতটা সাফল্য পেয়েছেন তেমন সাফল্য তার সম্পূর্ণ ক্যারিয়ারেও পাননি। ক্যারিয়ারের প্রথম সিনেমাতে সফল হয়েছেন বলিউডের এমন তারকাদের নিয়ে সাজানো হয়েছে এ প্রতিবেদন।

ভাগ্যশ্রী : ১৯৮৯ সালে সালমান খানের বিপরীতে ভাগ্যশ্রীর অভিষেক হয় বলিউডে। সিনেমার নাম ‘মাইনে পিয়ার কিয়া’ । শুধু হিন্দি ভাষার এই ছবিটি ব্লকবাস্টার ই হয়নি। অল্প সময়েই এটিকে একাধিক ভাষায় ডাবিং করে ভারতের বিভিন্ন প্রদেশে সুপার ডুপার হিট হয়। প্রথম সিনেমার মাধ্যমেই সবার মনে খুব প্রবলভাবে আসন গেড়ে বসে ভাগ্যশ্রী। যে কারনে পরের বছর সেরা অভিনেত্রী হিসেবে ফিল্মফেয়ার পুরস্কারসহ অনেকগুলো পুরস্কার জিতে নেন তিনি। তবে ভাগ্যশ্রী ১৯৯৯ সাল পর্যন্ত বিভিন্ন ভাষার প্রায় বিশটি সিনেমায় অভিনয় করলেও আর কোন সিনেমা-ই তেমন সাফল্যের মুখ দেখেনি। এরপর থেকে বলিউডের সিনেমায় আর দেখা নেই ভাগ্যশ্রীর। ৪৭ বছর বয়সী বর্তমানে অভিনয় থেকে দুরেই রয়েছেন বলা যায়।

কুমার গৌরভ : বর্তমানে সময়ে বলিউডে যে লাভ স্টোরির সিক্যুয়াল সিনেমাগুলো দেখা যাচ্ছে সেগুলো যাত্রা শুরু হয়েছিল এই কুমারের হাত ধরেই। ১৯৮১ সালে মুক্তি পায় লাভ স্টোরি। সিনেমাটিতে বান্টি চরিত্রে অভিনয় করেন কুমার। প্রথম সিনেমা হলেও আকাশচুম্বী সাফল্য পান তিনি। তারপর তার জনপ্রিয়তা তুঙ্গে ছিল এটা ভাবার কোন কারণ নেই। একই বছর মুক্তিপ্রাপ্ত সিনেমা ‘তেরি কিশমাত’ ফ্লপের খাতায় নাম লেখে। এরপর থেকে ২০০৯ সাল পর্যন্ত কুমার যতগুলো সিনেমাতেই অভিনয় করেছেন কোনটিই টপকাতে পারেনি সেই লাভ স্টোরির রেকর্ড। ৫৫ বছর বয়সী এই অভিনেতাকে বর্তমানে অভিনয়ে তেমন দেখা যায় না।

রাহুল রায় : ১৯৯০ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত ‘আশিকি’ সিনেমার মাধ্যমে শুধু ভারতেই নয় সমগ্র সিনেমা বিশ্বে বেশ সাড়া ফেলে দিয়েছিলেন রাহুল। বলা হয়ে থাকে মহেশ ভাটের আর অন্যকোন সিনেমা নিয়ে এত বেশি সোরগোল ওঠেনি বলিপাড়ায়। তবে ওই সিনেমার পর আর কোন সিনেমায় রাহুল রায় নিজেকে স্বতন্ত্র হিসেবে মানুষের মধ্যে প্রতিষ্ঠিত করতে পারেননি। এরপর থেকে আর কোন সিনেমা আশিকি কে ছাড়াতে না পারলেও রাহুল চালিয়ে গিয়েছেন তার অভিনয়। রাহুল অভিনীত সর্বশেষ সিনেমা ‘টু বি অর নট টু বি’ মুক্তি পায় ২০১৪ সালে। গেল বছর ‘হার স্টোরি’ নামে একটি সিনেমা মুক্তির কথা থাকলেও এখনো সেটি আঁটকে আছে অভ্যন্তরীণ জটিলতায়।

গ্রেসি সিং : বিভিন্নি টিভি শো এবং নাটকে অভিনয় করলেও গ্রেসির বলিউডে আনুষ্ঠানিক অভিষেক হয় ২০০১ সালে ‘লাগান’ সিনেমার মাধ্যমে। প্রথম সিনেমাতেই আমির খানের মতো সহঅভিনেতা এবং ভিন্ন ঘরানার স্ক্রিপ্টে নিজেকে প্রমানের সুযোগ পেয়েছিলেন তিনি। যে কারনে ২০০৪ সালে ডাক পান ‘মুন্না ভাই এমবিবিএস’ সিনেমাতে অভিনয় করার। এটিও দেখে সাফল্যের মুখ। তবে গেল ২০১৩ পর্যন্ত গ্রেসি অভিনীত বিশটির অধিক সিনেমা মুক্তি পেলেও তেমন সাফল্য পায়নি কোনটি। তবে গ্রেসি এ পর্যন্ত আইফা, ফিল্মফেয়ার অ্যাওয়ার্ডসহ বেশ কয়েকটি পুরস্কার জিতেছেন তিনি।

ভূমিকা চাওলা : ২০০৩ সালে ‘তেরে নাম’ মুক্তির পূর্বে তামিল তেলেগু মিলিয়ে প্রায় দশটির অধিক সিনেমায় অভিনয় করেছিলেন ভূমিকা। তবে রিমেইক গল্পে ‘তেরে নাম’ নির্মিত হলেও বলিউডে এসে প্রথম সিনেমাতেই আকাশচুম্বী সাফল্যের মুখ দেখেন ভূমিকা। দুঃখের বিষয় হলো- এরপর বলিউডের বেশ কয়েকটি সিনেমায় ডাক পেলেও নিজেকে ‘তেরে নাম’ থেকে পৃথক করতে পারেননি ভূমিকা। তাই হিন্দি সিনেমা ছেড়ে তামিল ও তেলেগু সিনেমাতেই অভিনয় করতে হয়েছে তাকে। তবে চলতি বছর হিন্দি ‘এম এস ধনী: দ্য আনটোল্ড স্টোরি’ সিনেমাটিতে দেখা যাবে তাকে। সিনেমাটি কতটুকু সাফল্য পায় দেখার অপেক্ষায় মুখিয়ে রয়েছে সিনেমা বিশ্ব।