মেইন ম্যেনু

অমর একুশে বইমেলার পর্দা নামছে আজ

ভাষা আন্দোলনের স্মৃতি বিজরিত অমর একুশে বইমেলার পর্দা নামছে আজ সোমবার। এক বছরের জন্য আবার থেমে যাবে লেখক-পাঠক-প্রকাশকদের এই মিলনমেলা।

আবেগ, উচ্ছ্বাস আর ভালবাসার এ মিলনমেলা এবারও বাংলা একাডেমি চত্বরের পাশাপাশি মুক্তিযুদ্ধের চেতনা জাগ্রত সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে স্থান করে নিয়েছে।

নানা আয়োজনে ভরপুর এবারের বইমেলার শুরু থেকেই পাঠক-ক্রেতাদের উপস্থিতি ছিল চোখে পড়ার মতো। শুক্র ও শনিবার সাপ্তাহিক ছুটির পর গতকালও মেলা প্রাঙ্গণে ছিল বইপ্রেমীদের ভিড়।

বিশেষ কিছু কারণে এবারের বইমেলাকে বিশেষায়িত করা যায়। এর মাঝে উল্লেখযোগ্য ছিল বাংলা একাডেমি গুণীজন স্মৃতি পুরস্কার ঘোষণা এবং বাংলা একাডেমির হীরকজয়ন্তী। আর সবচেয়ে ভালো দিক ছিল শিশুদের উপস্থিতি। পরিবারের বড়দের পাশাপাশি তারাও স্বতঃস্ফূর্তভাবে মেলায় অংশ নিয়েছে। মেলায় তাদের আনন্দের মাত্রা বাড়িয়ে দিয়েছিল বাংলা একাডেমির নানা সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। এ ছাড়া ছিল বেসরকারি উদ্যোগে সিসিমপুরের আয়োজন।

শেষ দিনের মেলা শুরু হবে বেলা ১টা থেকে, চলবে রাত ৮টা পর্যন্ত।

গত রবিবার বিভিন্ন স্টল, নজরুল মঞ্চ, মূল মঞ্চসহ মেলা প্রাঙ্গণে ছিল বইপ্রেমীদের উপচে পড়া ভিড়। প্রতিবারের মতো এবারো শেষ মুহূর্তে মেলায় দর্শনার্থীর তুলনায় ক্রেতার সংখ্যা বেশি। বিকিকিনি বেশি হওয়ায় খুশি প্রকাশকরাও।

ঐতিহ্য প্রকাশনীর বিক্রয় ব্যবস্থাপক আমজাদ হোসেন কাজল বলেন, ‘মেলার শেষ দিকে শুধু ক্রেতারাই আসেন। তাই এখন বিক্রি ভালো।’

গতকাল বিকাল ৪টায় গ্রন্থমেলার মূল মঞ্চে অনুষ্ঠিত হয় ‘ডিজিটাল মুক্তিযুদ্ধের কৌশল’ শীর্ষক আলোচনা অনুষ্ঠান। এতে প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন বিশিষ্ট তথ্যপ্রযুক্তিবিদ মোস্তাফা জব্বার।

বইমেলার শেষ দিন বিকাল চারটায় গ্রন্থমেলার মূল মঞ্চে রয়েছে ‘নওয়াজেশ আহমেদ ও নাইবুদ্দিন আহমদকে স্মরণ’ শীর্ষক আলোচনা অনুষ্ঠান। এতে প্রবন্ধ উপস্থাপন করবেন শিল্প-সমালোচক অধ্যাপক নজরুল ইসলাম।

আলোচনায় অংশগ্রহণ করবেন অধ্যাপক বুলবন ওসমান, শামসুল আলম ও নাসিম আহমেদ নাদভী। সভাপতিত্ব করবেন সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর।

এ ছাড়া সন্ধ্যা ছয়টায় গ্রন্থমেলার মূল মঞ্চে অনুষ্ঠিত হবে অমর একুশে গ্রন্থমেলা ২০১৬-এর সমাপনী অনুষ্ঠান।

অনুষ্ঠানে শুভেচ্ছা বক্তব্য দেবেন বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক শামসুজ্জামান খান।

গ্রন্থমেলা ২০১৬-এর প্রতিবেদন উপস্থাপন করবেন অমর একুশে গ্রন্থমেলা ২০১৬-এর সদস্য সচিব ড. জালাল আহমেদ। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি থাকবেন সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর এমপি। বিশেষ অতিথি থাকবেন সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব বেগম আক্তারী মমতাজ।

সভাপতিত্ব করবেন বাংলা একাডেমির সভাপতি ইমেরিটাস অধ্যাপক আনিসুজ্জামান। অনুষ্ঠানে প্রবাসে বাংলা ভাষা ও সাহিত্যের চর্চায় অবদানের জন্য ফরাসি গবেষক ও অনুবাদক ফ্রাঁস ভট্টাচার্য ও প্রবাসী বাঙালি কথাশিল্পী মন্জু ইসলামকে দেয়া হবে সৈয়দ ওয়ালীউল্লাহ্ পুরস্কার-২০১৫।