মেইন ম্যেনু

অর্থ ফিরিয়ে আনাই আমার মূল টার্গেট: ফজলে কবির

সদ্য চাকুরিতে যোগদান করা বাংলাদেশ ব্যাংকের নতুন গভর্নর ফজলে কবির বলেছেন, সম্প্রতি কেন্দ্রীয় ব্যাংক থেকে বের হয়ে যাওয়া ৮০০ কেটি অর্থ ফিরিয়ে আনাই আমার মূল টার্গেট। রোববার দুপুরে বাংলাদেশ ব্যাংকের নতুন গভর্নর হিসেবে দায়িত্ব গ্রহনের পর নিজ কক্ষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, ব্যাংক থেকে চুরি হয়ে যাওয়া পরে এই ঘটনার পর বাংলাদেশ ব্যাংকের কর্মকর্তা কর্মচারীবৃন্দদের মধ্যে যে হতাশা ছিল সেটা নিশ্চিত করাই হবে আমার কাজ।

তিনি আরো বলেন, আইটি সেক্টরে আরো বেশি নিরাপত্তা নিশ্চিত বা জোরদার করতে হবে। কেন্দ্রীয় ব্যাংককে সংস্কার করে নতুন উদ্যমে কাজ করার আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি। কমিটি প্রসঙ্গে তিনি বলেন, সরকার যে তদন্ত কমিটি গঠন করেছেন সেই তদন্ত কমিটির নির্দেশনা মোতাবেক কাজ করবো।

তিনি বিশ্বব্যাংকের আইটি বিশেষজ্ঞ রাকেশ আস্তানা সম্পর্কে বলেন, তিনি চলমান প্রকল্পের পরামর্শক হিসেবে কাজ করছেন। উনার ব্যাপারে আমরা কি করবো সেটা তদন্তের পর বলা যাবে।

উল্লেখ, যুক্তরাষ্ট্রের ফেডারেল রিজার্ভে সঞ্চিত, বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভের প্রায় ৮০০ কোটি কোটি টাকা ‘হ্যাকিংয়ের মাধ্যমে’ লোপাটের বিষয়টি গোপন রাখায় চাপের মধ্যে গত মঙ্গলবার পদত্যাগ করেন গভর্নর ড. আতিউর রহমান। ওই দিনই অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত নতুন গভর্নর হিসেবে ফজলে কবিরের নাম ঘোষণা করেন।

গত বুধবার বিকেলে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় প্রজ্ঞাপন জারি করে সাবেক অর্থ সচিব ও সোনালী ব্যাংকের চেয়ারম্যান ফজলে কবিরকে আগামী ৪ বছরের জন্য কেন্দ্রীয় ব্যাংকের গভর্নর হিসেবে নিয়োগ দেয়া হয়। নিউইয়র্কে থাকা অবস্থায় নিয়োগ পওয়া নতুন গভর্নর বৃহস্পতিবার ঢাকায় ফিরেন।

বাংলাদেশ ব্যাংকে ১১তম গভর্নর হিসেবে যোগদান করছেন ফজলে কবির। রোববার দুপুর ১২টায় আনুষ্ঠানিকভাবে তিনি কেন্দ্রীয় ব্যাংকে যোগদান করেন। নতুন গভর্নর ফজলে কবির কেন্দ্রীয় ব্যাংকে পৌঁছলে ডেপুটি গভর্নর আবু হেনা মোহাম্মদ রাজী হাসান ও এস কে সুর চৌধুরীসহ কেন্দ্রীয় ব্যাংকের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা তাকে ফুল দিয়ে স্বাগত জানান।