মেইন ম্যেনু

অলিম্পিকে পুরো নয়, আংশিক ‘নিষিদ্ধ’ রাশিয়া

অ্যাথলেটরা নিষিদ্ধ ওষুধ সেবন করেছেন এমন অভিযোগের পরও আসন্ন অলিম্পিকে রাশিয়াকে ‘পুরোপুরি নিষিদ্ধ না করার’ সিদ্ধান্ত নিয়েছে আন্তর্জাতিক অলিম্পিক কমিটি।

ব্রাজিলের রিও ডি জেনিরোতে ২০১৬-এর অলিম্পিক শুরু হচ্ছে আগামী ৫ আগস্ট। ডোপিং কেলেংকারির জন্য এতে রুশ ট্র্যাক অ্যান্ড ফিল্ড অ্যাথলেটদের অংশগ্রহণ ইতিমধ্যে নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

আইওসির সিদ্ধান্তের ফলে রাশিয়ার প্রতিযোগীদের অলিম্পিকে অংশ নেবার জন্য কঠোর পূর্ব শর্ত পূরণ করতে হবে।

রাশিয়ায় অ্যাথলেটরা ২০১১-২০১৫ সময়কালে বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় রাষ্ট্রীয় মদদে নিষিদ্ধ শক্তিবর্ধক ওষুধ সেবন করেছিলেন – এ অভিযোগ প্রমাণ হবার পর কিছুদিন আগেই ঔ নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়।

তদন্ত প্রতিবেদনে বলা হয়, ২০১২-এর লন্ডন অলিম্পিক এবং ২০১৪-এর শীতকালীন সোচি অলিম্পিকে রুশ অ্যাথলেটরা ডোপিং করেছিলেন এবং তার প্রমাণ নষ্ট করার কাজে ক্রীড়া প্রশাসনের কর্মকর্তারা সক্রিয় ভূমিকা নিয়েছিলেন।

আইওসির এই সিদ্ধান্তের ফলে বেশ কিছু ইভেন্টে অংশ নিতে পারবে রাশিয়া।

ডোপিঙের জন্য নিষিদ্ধ হয়েছেন এমন কোন রুশ এ্যাথলেট আসন্ন রিও অলিম্পিকে অংশ নিতে পারবেন না।

এখন দেখার বিষয় ছিল এ জন্য অলিম্পিকে রাশিয়ার অংশগ্রহণ সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ করা হয় কি না।

তবে দেখা যাচ্ছে আন্তর্জাতিক অলিম্পিক কমিটি সে রকম কোন নিষেধাজ্ঞা আরোপ করল না। তার পরিবর্তে এ ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেবার ক্ষমতা বিভিন্ন স্পোর্টস ফেডারেশনের ওপরই ছেড়ে দিয়েছে আই ও সি। ঔ ফেডারেশনগুলো চাইলে নির্দিষ্ট কোন অ্যাথলেট বা কোন খেলার জন্য পুরো রুশ দলকে নিষিদ্ধ করতে পারবে।