মেইন ম্যেনু

অল্প বয়সে পাকা চুল? রুখে দিতে জেনে নিন…

সবে মাত্র চুলের নানা স্টাইল রপ্ত করেছেন। জীবনের এই সময়টাতে নানা রঙে-ঢঙে ফ্যাশনের সঙ্গে ঘুরবেন, আড্ডা দেবেন, চুলের সাজে চেহারায় ফুটিয়ে তুলবেন মনের মতো ভাব। কিন্তু আয়নার সামনে দাঁড়িয়ে পাকা চুল দেখার পর হৃদয় ভঙ্গের আর কোনো কারণ দরকার হয় না। মানসিক চাপ, বাজে খাদ্যাভ্যাস, প্রকৃতির বৈরী প্রভাব, অযত্ন আর অবহেলায় ইদানীং অনেকের মধ্যে সমস্যাটি দেখা দিচ্ছে। অল্প বয়সে চুল পেকে গেলে তুলনামুলক বয়স্ক দেখায়। চেহারায়ও মনিলতার ছাপ পড়ে। অল্প বয়সে চুল পড়া রুখে দিতে প্রতিদিন কিছু খাবার খাওয়ার অভ্যাস গড়ে তুলুন। দেখবেন অল্প বয়সে চুল পাকার সমস্যা থেকে রেহাই পেয়ে যাবেন।

সামুদ্রিক মাছ

বিশেষ করে সামুদ্রিক মাছে পাবেন ওমেগা-৩ ও ৬ ফ্যাটি অ্যাসিড। মাছের এই উপাদান অল্প বয়সে চুল পেকে যাওয়ার হাত থেকে রক্ষা করতে খুবই কার্যকরী। এছাড়াও মাছে রয়েছে জরুরি হরমোন উৎপাদনের জন্য সেলেনিয়াম। সেলেনিয়াম অল্প বয়সে চুল পাকা রোধে সহায়তা করে।

সবুজ শাকসবজি

সবুজ শাকসবজিতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট এবং ডায়াটেরি ফাইবার। এছাড়াও সবুজ শাকসবজির ভিটামিন বি মাথার ত্বকের সুস্থতা নিশ্চিত করে। এতে করে নিয়মিত শাকসবজি খাবার মাধ্যমে অল্প বয়সে চুল পাকার হাত থেকে বাঁচতে পারেন সহজেই।

চকলেট

চকলেট খেতে নানা বারণ শুনতে অভ্যস্ত, অথচ চুলের জন্য তা বেশ কার্যকরী একটি খাবার। চকলেটে রয়েছে কপার যা দেহে মেলানিন উৎপাদনে সহায়তা করে। আর মেলানিন চুলের রঙ কালো রাখে। পরিমিত পরিমানে নিয়মিত ডার্ক চকলেট খেলে অল্প বয়সে চুল পাকার হাত থেকে রেহাই পেতে পারেন।

কাঠবাদাম

কাঠবাদামে রয়েছে ভিটামিন ই এবং কপার। এই দুটো উপাদানই চুলের যত্নে বিশেষভাবে জরুরি। ভিটামিন ই চুলের ফলিকল মজবুত করে এবং কপার দেহে মেলানিন উৎপন্ন করে চুলের রঙ কালো রাখতে সহায়তা করে। প্রতিদিন কিছুটা হলেও কাঠবাদাম খাওয়ার অভ্যাস রাখুন।



« (পূর্বের সংবাদ)