মেইন ম্যেনু

অসুখী হলেই শাস্তি!!

আপনি কি দুবাইয়ে থাকেন? তাহলে তো মন খারাপ থাকা একদমই চলবেনা। কেননা শহরে কেউ অসুখী রয়েছে জানলেই ছুটে আসবে পুলিশ-প্রশ্নবানে আপনার জীবন অতিষ্ঠ করে তুলবে।

২০২১ সালে বিশ্বের সেরা সুখী শহরের শীর্ষ তালিকায় জায়গা করে নিতেই সেখানে শুরু হয়েছে নানা তৎপরতা। এই পুলিশি জিজ্ঞাসাবাদ এরই একটি অংশ। ইতিমধ্যে তারা টুইটারে ইংরেজি ও আরবি ভাষায় বিজ্ঞাপন দিচ্ছে যাতে লেখা রয়েছে,‘আপনার নিরাপত্তাই আমাদের সুখ।’

সম্প্রতি সুখের ওপর একটি জরিপও পরিচালনা করেছে দুবাই পুলিশ। জরিপে শহরের লোকজন সুখী কিনা সেটাই জানতে চাওয়া হয়েছিল। বলাবাহুল্য শহরের বাসিন্দাদের মোবাইলে পাঠানো প্রশ্নপত্রে শাসক শেখ মোহাম্মদ বিন রশিদ আল মাখতুম এবং শহরের সেরা স্থাপত্য বুর্জ আল খলিফার ছবি ছিল। ওই জরিপে অংশগ্রহণকারী ৮৪ ভাগই নিজেদের সুখী বলে দাবি করেছে। অসুখীদের সংখ্যা মাত্র ১০ ভাগ। আর মাঝামাঝি অবস্থানে ছিল ৬ ভাগ। সবমিলিয়ে ২ লাখ মানুষ ওই জরিপে অংশ নিয়েছিল।

এখানেই শেষ নয়। এই জরিপে যারা সুখে নেই বলে জানিয়েছিলেন তাদের হরদম ফোন দিচ্ছেন পুলিশ কর্মকর্তারা। যেন দুবাইয়ে থেকে সুখে না থাকার মত অপরাধ আর হয় না। এমনকি এসব লোকজনের দু:খ দূর করার জন্যও নাকি তারা তৎপর হয়েছেন।

এ সম্পর্কে দুবাইয়ের পুলিশ প্রধান মেজর জেনারেল খামিস মাত্তার আল মাজিনা জানিয়েছেন, ‘বিচারিক বিভাগের কারণে যারা দুশ্চিন্তায় রয়েছেন আমরা তাদের যাবতীয় সহায়তা দিচ্ছি। শুধু বিচারিক নয়-ওই ব্যক্তির দুর্দশার সঙ্গে সরকারের অন্যান্য বিভাগ জড়িত থাকলেও আমরা যথাযথ কর্তৃপক্ষের কাছে তদবির করছি।’ ব্যক্তিগত কারণে কারো মন খারাপ থাকলে অবশ্য আলাদা বিষয়। কেননা এটি তাদের এখতিয়ারের বাইরে।

২০১৫ সালে জাতিসংঘের বিশ্ব সুখী দেশের তালিকায় সংযুক্ত আরব আমিরাতের অবস্থান ছিল ২০য়ে। আরব দেশগুলোর মধ্যে তারাই সবচেয়ে এগিয়ে ছিল। ২০২১ সালে তারা এ তালিকার সেরা ১০য়ে ওঠে আসার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। তাই দুবাইয়ে বসবাসকারীদের অখুশী বা অসুখী থাকা কোনোমতেই চলবে না।