মেইন ম্যেনু

অস্ত্রসহ গ্রেফতার সেই ছাত্রলীগ নেতা রনির জামিন

চট্টগ্রামের হাটহাজারীর একটি ভোটকেন্দ্র থেকে অস্ত্রসহ গ্রেফতার হওয়ার পর ২ বছরের সাজাপ্রাপ্ত নগর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক নূরুল আজিম রনি এ মামলার বিরুদ্ধে আপিল করে জামিন পেয়েছেন।

বুধবার বিকেলে চট্টগ্রামের জেলা ও দায়রা জজ মো. নূরুল হুদা আপিল আবেদন ও অস্ত্র মামলায় জামিন আবেদনের শুনানি শেষে আপিল আবেদন গ্রহণ করে জামিনের আদেশ দেন।

তবে আদালত অস্ত্র আইনে দায়ের করা মামলায় জামিন নামঞ্জুর করেন। এতে করে এখনই তিনি মুক্তি পাচ্ছেন না।

রনির আইনজীবী ও নগর আওয়ামী লীগ নেতা অ্যাডভোকেট ইফতেখার সাইমুল চৌধুরী রনির জামিনের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, ‘ভ্রাম্যমাণ আদালতের দেওয়া কারাদণ্ডের বিরুদ্ধে আপিল আবেদন গ্রহণ করে আদালত জামিন দিয়েছেন। কিন্তু অস্ত্র মামলায় জামিনের আবেদনটি আদালত বিবেচনা করেননি। তাই আমরা রনির জামিনের আবেদন করব হাইকোর্টে।’

উল্লেখ্য, গত ৭ মে চট্টগ্রামের হাটহাজারী উপজেলা মির্জাপুর ইউনিয়নের সাত নম্বর ভোটকেন্দ্র ছইল্যাপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনে থেকে নূরুল আজিম রনিকে (২৭) অস্ত্রসহ আটক করেন ভ্রাম্যমাণ আদালতের জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট হারুনুর রশিদ।

এ সময় তার কাছ থেকে একটি অবৈধ নাইন এম এম পিস্তল ১৫ রাউন্ড গুলিসহ একটি ম্যাগজিন এবং ২৬ হাজার টাকা উদ্ধার করা হয়। পরে বিজিবি সদস্যরা রনিকে তাদের গাড়িতে তুলে নিয়ে যেতে চাইলে পুলিশ নিজেদের হেফাজতে নেয় তাকে। এ ঘটনায় তাৎক্ষণিক ভ্রাম্যমাণ আদালত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন বিধিমালা ২০১৬ এর দুটি ধারায় এক বছর করে মোট দুই বছর কারাদণ্ডের রায় দেন।

অপরদিকে অস্ত্র মামলায় হাটহাজারী থানা পুলিশ বাদী হয়ে মামলা দায়েরের পর পুলিশ পরদিন তাকে সরাসরি কারাগারে প্রেরণ করে।

বুধবার আদালতে রনির জামিন শুনানিকালে আওয়ামী সমর্থক শতাধিক আইনজীবী শুনানিতে অংশ নেন। আদালত এলাকায় অবস্থান করছিলেন যুবলীগ-ছাত্রলীগের শত শত নেতাকর্মী।

এদিকে বুধবারের মধ্যে নগর যুবলীগ সাধারণ সম্পাদক রনির মুক্তি না দিলে চট্টগ্রামে হরতাল অবরোধের কর্মসূচি দেওয়া হবে বলে জানান ছাত্রলীগ নেতারা।

কারাগারে যাওয়ার দুই দিন পর থেকে রনি হার্টের সমস্যায় অসুস্থ হয়ে বর্তমানে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ক্যাবিনে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।