মেইন ম্যেনু

অস্থি সন্ধির ব্যথায় যে ৬টি খাবার ভুলেও খাবেন না!

হাড়ের সংযোগস্থলকে অস্থি সন্ধি বা জয়েন্ট বলা হয়। বিভিন্ন কারণে এই জয়েন্টে ব্যথার হতে পারে। জয়েন্টের ব্যথা বেশ কষ্টকর এবং অস্বস্তিকর। মূলত বাতের কারণে অস্থি সন্ধিতে ব্যথা দেখা দিলেও আরও কিছু কারণ থাকতে পারে এই ব্যথার। লুপিস, বিভিন্ন ইনফেকশন, ক্যান্সার, হাড়ের ইনফেকশন ইত্যাদি বিভিন্ন কারণে অস্থি সন্ধিতে ব্যথা হতে পারে। সাধারণত ঔষুধ, ব্যায়াম এবং মেডিটেশন অস্থি সন্ধির ব্যথা রোধ করে থাকে। আদা, হলুদ এবং রসুন আছে যা এই ব্যথা হ্রাস করতে সাহায্য করে। আবার কিছু খাবার আছে যা ব্যথা বাড়িয়ে দেয়। তাই সে সময় এই খাবারগুলো পরিহার করা উচিত।

১। প্রসেসড ফুড এবং মাংস

প্রসেসড মাংসতে পিউরিন এবং নিটরিটস আছে যা দেহের ইনফ্লামেশন এবং ব্যথা বৃদ্ধি করে থাকে। এছাড়া প্রসেসড ফুড এবং রেড মিটে প্রচুর পরিমাণে টক্সিন আছে যা ব্যথার বাড়িয়ে দেওয়ার জন্য দায়ী। National Academy of Sciences ২০১৪ সালে এক জরিপে প্রকাশ করে যে লাল মাংসে গ্লাক্যান নামক উপাদান আছে যা ক্যান্সারও সৃষ্টি করতে পারে।

২। রিফ্রাইন্ড এবং কৃত্রিম চিনি

অতিরিক্ত চিনি দেহের এজিএই (Advanced glycation end product) বৃদ্ধি করে যা শরীরে ইনফ্লামেশন সৃষ্টি করে। অতিরিক্ত চিনি ওজন বৃদ্ধি করে যার কারণে শরীরের জয়েন্টে প্রেশার পড়ে এবং অস্থি সন্ধির ব্যথা সৃষ্টি হয়। কৃত্রিম চিনি যুক্ত পানীয় যেমন কোক, ফাণ্টা, মিরিন্ডা ইত্যাদিও জয়েন্ট ব্যথার জন্য ভাল হয়। জয়েন্টে ব্যথার সময় এই পানীয়গুলো খাওয়া থেকে বিরত থাকুন।

৩। দুগ্ধ জাতীয় খাবার

দুগ্ধ জাতীয় খাবার অনেক সময় বাত বা অস্থি সন্ধির ব্যথা বৃদ্ধি করে থাকে। Physicians Committee for Responsible Medicine এর মতে দুধে থাকা প্রোটিন কিছু মানুষের হাড় এবং হাড়ের টিস্যুকে উত্তেজিত করে দিয়ে থাকে। তাই জয়েণ্টের ব্যথার সময় দুগ্ধ জাতীয় খাবার বা মাংসের পরিবর্তে সবজি যেমন বাদাম, তফু, বিনস, পালং শাক খেয়ে পূরণ করা যেতে পারে।

৪। ডিম

প্রতিদিন ডিম খাওয়া জয়েন্টের ব্যথা বৃদ্ধি করে দিতে পারে। ডিম বিশেষ করে ডিমের কুসুমে অ্যারাসিডোনিক অ্যাসিড থাকে যা প্রোস্টাগ্লান্ডিনস উৎপাদন করে অস্থি সন্ধির ব্যথা বাড়িয়ে দিয়ে থাকে। আপনার যদি ডিম খাওয়ার প্রয়োজন পড়ে, তবে কুসুমটি বাদ দিয়ে শুধু সাদা অংশ খেতে পারেন।

৫। অ্যালকোহল এবং টোবাকা

টোবাকো এবং অ্যালকোহল শরীরে নানা সমস্যা সৃষ্টি করে থাকে। জয়েণ্টের ব্যথা এর মধ্যে অন্যতম। ধূমপায়ীদের রিউম্যাটয়েড বা গিট ফুলে যাওয়ার মত সমস্যা বেশি দেখা দিয়ে থাকে। এমনকি মদ্যপায়ীদেরও জয়েণ্টে ব্যথা বা বাত বেশি হয়ে থাকে। ধূমপান এবং মদ্যপানের অভ্যাস ত্যাগ করুন।

৬। লবণ

অতিরিক্ত লবণ স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর। বিশেষত আপনি যদি জয়েন্ট ব্যথার রোগী হয়ে থাকেন, তবে লবণ আপনার জন্য বিষের মত কাজ করবে। পরিশোধিত লবণে ferrocyanide and aluminosilicate নামক দুটি উপাদান শরীরে পানি বের করে দিয়ে থাকে। এবং জয়েণ্টের ব্যথা বৃদ্ধি করে। এছাড়া পরিশোধিত লবণে মিনারেল যেমন সলিকন, ফসফরাস থাকে না। খাবারের সাথে বাড়তি লবণ খাওয়ার অভ্যাস থাকলে এটি আজই ত্যাগ করুন। লবণ আপনার হাড়ের ক্যালসিয়াম হ্রাস করে দেয় যার কারণে জয়েন্টে ব্যথা বৃদ্ধি পেয়ে থাকে।

অস্থি সন্ধির ব্যথা হলে দ্রুত চিকিৎসকের পরামর্শ নেওয়া উচিত। এছাড়া ব্যয়াম, সঠিক ডায়েটের পাশাপাশি এই খাবারগুলো এড়িয়ে যাওয়ার চেষ্টা করুন।