মেইন ম্যেনু

অ্যাম্বুলেন্স চালিয়ে দুর্ঘটনায় আহতদের হাসপাতালে নিলেন এমপি

ঝিনাইদহের কালীগঞ্জে বৃহস্পতিবার সড়ক দুর্ঘটনায় হতাহতদের উদ্ধারে এগিয়ে আসেন স্থানীয় সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আজীম আনার। এসময় অন্যদের সঙ্গে উদ্ধারকাজে অংশ নেন তিনি। শুধু তাই নয়, নিজে অ্যাম্বুলেন্স চালিয়ে আহতদের হাসপাতালে নিয়ে যান ঝিনাইদহ-৪ আসনের এই এমপি।

বৃহস্পতিবার দুপুর দেড়টার দিকে কালীগঞ্জের বৈশাখী তেল পাম্প এলাকায় সড়ক দুর্ঘটনায় তিন বাসযাত্রী নিহত ও ৩০ জন আহত হন। আহতদের মধ্যে ১০জনের অবস্থা আংশকাজনক হওয়ায় তাদের যশোর ২৫০ শয্যা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

দুর্ঘটনার পর ফায়ার সার্ভিস ও স্থানীয়দের সঙ্গে আহতদের উদ্ধারকাজে অংশ নেন আনোয়ারুল আজীম আনার। প্রথমে আহতদের সবাইকে উদ্ধার করে কালীগঞ্জ থানা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়া হয়। কিন্তু ১০ জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় চিকিৎসকরা তাদেরকে যশোরে নিয়ে যেতে বলেন। এসময় হাসপাতালে অ্যাম্বুলেন্স পাওয়া গেলেও চালক ছিলেন না।

পরে এমপি আনোয়ারুল আজীম নিজেই চালকের আসনে বসে আহতদের যশোর ২৫০ শয্যা হাসপাতালে নিয়ে যান। সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আজিম আনার ঢাকাটাইমসেক বলেন, ‘আহতদের অবস্থা দেখে বিবেকের কারণে চালকের আসনে বসে পড়লাম। তাছাড়া এই অ্যাম্বুলেন্সের চালকও ছিল না।

আহতরা তো বিনা চিকিৎসায় মারা যেতে পারে না। তাই ঝুঁকি নিয়েই নিলাম।’ পরে হাসপাতালে আনার পর সংসদ সদস্য আনার আহতদের চিকিৎসার তদারকি করেন। বেশ কিছু সময় তিনি হাসপাতালে কাটান। কালীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আমিনুল ইসলাম জানান, যশোর থেকে কালীগঞ্জগামী শাপলা পরিবহনের একটি বাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে এক সাইকেল আরোহীকে চাপা দেয়।

এক পর্যায়ে ওই বাসটি কড়ইগাছের সঙ্গে ধাক্কা খায়। এতে কালীগঞ্জ উপজেলার বলিদাপাড়া গ্রামের ইবাদত বিশ্বাসের ছেলে ইব্রাহিম ও শহরের মহিলা কলেজ গেট এলাকার শিক্ষক আমিনুল ইসলাম নিহত হন। এছাড়া নিহত এক নারী যাত্রীর পরিচয় পাওয়া যায়নি। দুর্ঘটনায় কমপক্ষে ৩০ যাত্রী আহত হন।

কালীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা প্রফুল্ল কুমার মজুমদার জানান, হাসপাতালে প্রায় ৩০ জনকে আনা হয়। এর মধ্যে ১০ জনের অবস্থা গুরুতর হওয়ায় তাদের যশোর ২৫০ শয্যা হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।






মন্তব্য চালু নেই