মেইন ম্যেনু

অ্যাম্বুল্যান্সে বিয়ে !

স্ট্রেচারে শুয়ে অ্যাম্বুল্যান্সের ভিতরে বিয়ে সারলেন নার্সিং ডিপ্লোমা কোর্সের ছাত্রী নেত্রবতী। অ্যাম্বুল্যান্সে উঠেই তাঁর গলায় মালা পরালেন প্রেমিক গুরুস্বামী। রবিবার এমনই নজির সৃষ্টি হল ভারতের কর্নাটকের চিত্রদূর্গায়।

বেঙ্গালুরু থেকে ২০০ কিমি দূরে চিত্রদূর্গা মুরুগারাজেন্দ্র বৃহন্মঠে রবিবার অনুষ্ঠিত হল গণবিবাহ। মোট ২৩ যুগল এই অনুষ্ঠানের মাধ্যমে পরস্পরকে স্বামী-স্ত্রী হিসেবে গ্রহণ করেন। এই গণবিবাহের মঞ্চেই প্রেমিক গুরুস্বামীর সঙ্গে পরিনয় সূত্রে বাঁধা পড়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন চিত্রদূর্গা জেলার মোলাকালমুরু তালুকের বিজি কেরে গ্রামের তরুণী নেত্রবতী।

কৃষক পরিবারের দুই সন্তানের পরিচয় হয়েছিল কয়েক মাস আগে। ঘনিষ্ঠতা পারস্পরিক প্রেমে গড়ানোর পর বিয়ের সিদ্ধান্ত নেন দু’জন। কিন্তু বিয়ের ঠিক আগে, গত ২৩ মে চিত্রদূর্গ ফোর্টে পিকনিক করতে গিয়ে পা ফস্কে পড়ে গিয়ে গুরুতর জখম হন নেত্রবতী। প্রথমে স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করা হলেও চিকিত্‍সকদের পরামর্শ মেনে তাঁকে বেঙ্গালুরুর নিমহ্যান্সে স্থানান্তরিত করা হয়। এক সপ্তাহ হাসপাতালে কাটানোর পর ৫ জুনেই বিয়ে সারার সিদ্ধান্ত নেন অসম সাহসী নেত্রবতী।

নিমহ্যান্সের চিকিত্‍সকরা তাঁকে চিত্রদূর্গা সরকারি হাসপাতালে ফেরত পাঠান। তবে তাঁদের নির্দেশ মেনে আপাতত জখম তরুণীর হাঁটাচলায় নিষেধাজ্ঞা জারি হয়েছে। তবু এই অবস্থাতেই বিয়ে করার সিদ্ধান্তে অটল থাকেন নেত্রবতী। তাংকে সমর্থন করেন প্রেমিক গুরুস্বামী। নির্দিষ্ট দিনে অ্যাম্বুল্যান্সে চড়ে বিয়ের আসরে হাজির হন এই তরুণী।

প্রতিকূল পরিস্থিতিতে দম্পতির মনের জোর দেখে উচ্ছ্বসিত চিত্রদূর্গা মুরুগারাজেন্দ্র বৃহন্মঠের পূজারী মুরুগারাজেন্দ্র স্বামী। অ্যাম্বুলেন্সের ভিতরেই বর-কনেকে হিন্দু মতে বিয়ে দেন তিনি। তীব্র যন্ত্রণা উপেক্ষা করেই স্ট্রেচার তেকে মাথা তোলেন নেত্রবতী। প্রেমিকার গলায় মঙ্গলসূত্র পরিয়ে তাঁকে বধূরূপে গ্রহণ করেন পেশায় প্রযুক্তিবিদ গুরুস্বামী।