মেইন ম্যেনু

আইএসের বিরুদ্ধে ক্লোরিন গ্যাস ব্যবহারের অভিযোগ

জঙ্গি গোষ্ঠী ইসলামিক স্টেটের বিরুদ্ধে এবার ক্লোরিন গ্যাস ব্যবহারের অভিযোগ তুলেছে অস্ট্রেলিয়া। এর আগে এই অভিযোগ তুলেছিল ইরাকের কুর্দিরা। উন্নতমানের রাসায়নিক অস্ত্র তৈরির জন্য এই জঙ্গি গোষ্ঠীটি প্রযুক্তিতে দক্ষ এবং উচ্চ প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত প্রযুক্তিবিদদের নিয়োগ দিচ্ছে বলেও জানিয়েছেন দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী জুলি বিশপ।

শুক্রবার পার্থে এক সভায় বক্তব্য রাখার সময় পররাষ্ট্রমন্ত্রী জুলি বিশপ বলেন, ‘আইএসের মত জঙ্গি গোষ্ঠীগুলো আমাদের নিরাপত্তার জন্য ব্যাপক হুমকির কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে।’

তিনি বলেন, কেবল ক্ষুদ্র আকারের অস্ত্র নয়, ওই সন্ত্রাসী গোষ্ঠীটি এখন রাসায়নিক অস্ত্র তৈরির জন্যও চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। তারা ক্লোরিন অস্ত্র হিসেবে ক্লোরিন গ্যাস ব্যবহার করছে। এছাড়া আরো উন্নতমানের রাসায়নিক অস্ত্র তৈরির জন্য তারা প্রযুক্তিতে উচ্চ প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত পেশাদার প্রযুক্তিবিদদের নিয়োগ দিতে শুরু করেছে। এদের মধ্যে অনেক পশ্চিমা প্রযুক্তিবিদও রয়েছেন।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বিশপ আরো বলেছেন, রাসায়নিক উপকরণ পরিশোধন এবং রাসায়নিক অস্ত্র তৈরির জন্য আইএস দশ হাজার প্রযুক্তি বিশেষজ্ঞকে নিয়োগ দিয়েছে।

এর আগে গত জানুয়ারি মাসে ইরাকের কুর্দি কর্তৃপক্ষ এই সশস্ত্র গোষ্ঠীটির বিরুদ্ধে ক্লোরিন গ্যাস ব্যবহারের অভিযোগ তুলেছিল। ইরাকের উত্তরাঞ্চলে পেশমার্গ যোদ্ধাদের বিরুদ্ধে এই গ্যাস ব্যবহার করা হয়েছিল বলে তখন অভিযোগ উঠেছিল।

এর আগে সিরিয়ার প্রেসিডেন্ট বশির আল আসাদের বিরুদ্ধে এই গ্যাস ব্যবহারের অভিযোগ ওঠেছিল। এই অভিযোগের বিরুদ্ধে এখনো তদন্ত চালাচ্ছে রাসায়নিক অস্ত্র নিষিদ্ধকরণ সংস্থাটি।

প্রসঙ্গত, প্রথম বিশ্বযুদ্ধে রাসায়নিক অস্ত্র হিসেবে ক্লেরিন গ্যাস ব্যবহার করা হয়েছিল। ১৯৯৭ সালে রাসায়নিক অস্ত্র সংক্রান্ত এক সম্মেলনে যুদ্ধক্ষেত্রে এই গ্যাসের ব্যবহার নিষিদ্ধ করা হয়।