মেইন ম্যেনু

আইএসের হামলায় নিহত বিশ্ব কাঁপানো সেই নারী কুর্দি যোদ্ধা

তিনি অভিনেত্রী ছিলেন না। ছিলেন না মডেলও। ছিলেন কুর্দিদের ওম্যান প্রোটেকশন ইউনিটের সক্রিয় সদস্য। লড়াই করেছেন জঙ্গি সংগঠন আইএসের বিরুদ্ধে। কিন্তু, হলিউড স্টার অ্যাঞ্জেলিনা জোলির সঙ্গে মুখের মিল ছিল তার।

সেই ২২ বছর বয়সি সুন্দরী রামাজ়ান আনতারই হয়ে উঠেছিলেন আইএসের ত্রাস। টার্কি ও সিরিয়া সীমান্ত থেকে কুর্দিদের মহিলা বাহিনীকে সামনে থেকে নেতৃত্ব দিয়েছেন তিনি। তারই মৃত্যু হয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে।

উত্তর সিরিয়ায় আইএসের বিরুদ্ধে একাধিক যুদ্ধে লড়াই করেছেন। কিন্তু, তিনি শহিদ হয়েছেন বলে “উই ওয়ান্ট ফ্রিডম ফর কুর্দিস্তান” নামে ফেসবুকে পেজে জানানো হয়েছে। কিন্তু, কীভাবে তার মৃত্যু হয়েছে, তা নিয়ে নানা মত উঠে আসছে।

অনেকেই বলছেন, সিরিয়ান ডেমোক্রেটিক ফ্রন্টের সঙ্গে টার্কি প্রভাবিত সংগঠনের লড়াইয়ে তার মৃত্যু হয়েছে। তবে যেভাবেই তার মৃত্যু হোক না কেন আনতারকে লড়াকু কুর্দিশ যোদ্ধা হিসেবেই অভিহিত করেছেন অনেকে।

ওম্যান প্রোটেকশন গ্রুপ হল কুর্দিশ পিপলস প্রোটেকশন ইউনিটের একটি শাখা। যারা ইরাক ও সিরিয়ায় আইএসে বিরুদ্ধে নিরন্তর লড়াই করে চলেছে। আর আনতার ছিলেন সেই সংগঠনেরই একজন সক্রিয় সদস্য।