মেইন ম্যেনু

আইনের চেয়ে পুলিশের হাত লম্বা

পুলিশের বিরুদ্ধে গুরুতর অভিযোগ এনে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া বলেছেন, ‘আগে জানতাম আইনের হাত অনেক লম্বা। কিন্তু তার চেয়েও পুলিশের হাত লম্বা। এদের ওপর কারো নিয়ন্ত্রণ নেই।’

তিনি বলেন, ‘পুলিশ হলো জনগণের সেবক। কিছু পুলিশ চরম অত্যাচার, দুর্নীতির সঙ্গে লিপ্ত। তারা মানুষকে আটক করে টাকা চায়। না হলে ক্রসফায়ার দেয়ার হুমকি দেয়। পুলিশ এখন সরকারেরও উপরে। এদের হাত অনেক লম্বা হয়ে গেছে। তারা বলছে সরকারকে টিকিয়ে রেখেছি আমরা।’

রোববার রাজধানীর লেডিসক্লাবে বিএনপিপন্থি চিকিৎসকদের সংগঠন ডক্টর’স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ড্যাব) আয়োজিত ইফতার মাহফিলে এ কথা বলেন খালেদা জিয়া।

গণঅভ্যুত্থানের মাধ্যমে সরকার পতনের হুঁশিয়ারি দিয়ে খালেদা জিয়া বলেন, ‘রমজানে সবাই দোয়া করবেন যাতে জালেমদের দ্রুত বিদায় হয়। জনগণের গণঅভ্যুত্থানে সরকারের বিদায় হয়।’

সাধারণত ইফতারের আগেই খালেদা জিয়ার রাজনৈতিক বক্তব্য শেষ হয়। তবে এবার সেই ধারাবাহিকতা অক্ষুণ্ণ থাকেনি। কারণ ইফতারের পর তিনি অনুষ্ঠানস্থলে পৌঁছেনে। আসতে বিলম্ব হওয়ায় ইফতারের পরে সংক্ষিপ্ত বক্তব্য দেন বিএনপি চেয়ারপারসন।

জনগণের দুর্ভোগের কথা তুলে ধরে খালেদা জিয়া বলেন, ‘জিনিসপত্রের দাম অনেক। সাধারণ মানুষকে অনেক কষ্টে রোজা রাখতে হচ্ছে। সরকার বড় বড় বুলি আওড়ায় কিন্তু এদিকে তাদের কোনো নজর নেই। অথচ তারা বড় বড় প্রকল্পের নামে লুটপাট করছে।’

আয়োজক সংগঠনের সভাপতি ডা. একেএম আজিজুল হকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন- সাবেক রাষ্ট্রপতি ও বিকল্পধারা বাংলাদেশের প্রেসিডেন্ট একিউএম বদরুদ্দোজা চৌধুরী, তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সাবেক উপদেষ্টা অধ্যাপক ডা. আবদুল মাজেদ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভিসি ড. এমাজউদ্দিন আহমেদ, গণস্বাস্থ্যের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী, বাংলাদেশ সম্মিলিত পেশাজীবী পরিষদের সাবেক আহ্বান রুহুল আমিন গাজী, বিএফইউজের সভাপতি শওকত মাহমুদ প্রমুখ।