মেইন ম্যেনু

বজ্রপাতে সারাদেশে দু’দিনে ৫৭ জনের প্রাণহানি

বজ্রপাতে শুক্রবার দেশের ১১ জেলায় মারা গেছে ১৮ জন। দেশের ১৫ জেলায় বজ্রপাতে বৃহস্পতিবার প্রাণ গেছে ৩৯ জনের। বজ্রপাতে একদিনে প্রাণহানির এ সংখ্যা চলতি বছরে সর্বোচ্চ। বজ্রপাতে সারাদেশে দু’দিনে ৫৮ জনের প্রাণহানির ঘটনা ঘটেছে।

জয়পুরহাট : জেলার সদর ও ক্ষেতলাল উপজেলায় পৃথক দুই স্থানে বজ্রপাতে দুই ধানকাটা শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছে। শুক্রবার বেলা ১১টা ও ১০টার দিকে পৃথক বজ্রপাতে এ দুজন মারা যান। নিহতরা হলেন-জেলার ক্ষেতলাল উপজেলার ঘুগইল গ্রামের আছাদুজ্জামানের ছেলে মানিক হোসেন (৩৫) ও কুড়িগ্রামের নাগেশ্বরী উপজেলার ইসমাইল হোসেনের ছেলে রফিকুল ইসলাম (৩৩)।

শুক্রবার বেলা ১১টায় ক্ষেতলাল উপজেলার ঘুগইল গ্রামের মাঠে ধান কাটার সময় বজ্রপাতে মানিক হোসেন নামে এক শ্রমিক মারা যান। এর আগে সকাল ১০টায় একইভাবে মৃত্যু হয় সদর উপজেলার তুলশীগঙ্গা নদী তীরবর্তী সতিঘাটা এলাকায় আরেক ধানকাটা শ্রমিক আফজাল হোসেনের।

জয়পুরহাট সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ফরিদ হোসেন ও ক্ষেতলাল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মনিরুল ইসলাম বজ্রপাতে এ মৃত্যুর সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

নওগাঁ : জেলার পোরশা উপজেলার নিতপুর দীঘিপাড়া ও মহাদেপুর উপজেলার ধঞ্জইল গ্রামে বজ্রপাতে দুইজনের মৃত্যু হয়েছে। শুক্রবার বেলা পৌনে ১১টার দিকে বজ্রপাতে এদের মৃত্যু হয়। মৃতরা হলেন-পোরশা উপজেলার নীতপুর দীঘিপাড়া গ্রামের গোলজার হোসেনের ছেলে ইব্রাহিম (১৪) ও মহাদেপুর উপজেলার ধঞ্জইল গ্রামের কৃষক শচীন মুহরি (৫৮)।

স্থানীয়রা জানান, সকালে ঝড়-বৃষ্টির সময় ইব্রাহিম বাড়ির পাশে একটি বাগানে আম কুড়াতে যায়। এ সময় বজ্রপাতে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়। এছাড়া, মাঠে ফসল দেখতে গিয়ে  ধঞ্জইলে বজ্রপাতে মৃত্যু হয় কৃষক শচীন মুহরির।  নওগাঁ সদর আধুনিক হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসক (আরএমও) মাহফুজার রহমান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

চট্টগ্রাম : নগরীর হালিশহর থানার ফইল্ল্যাতলী এলাকায় বজ্রপাতে আমজাদ হোসেন (২৫) নামে এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে। নিহত যুবক সাবেক গণশিক্ষা মন্ত্রী ও হালিশহর-ডবলমুরিং আসনের সরকার দলীয় সাংসদ ডা. আফসারুল আমীনের চাচাতো ভাই বলে পুলিশ জানিয়েছে। শুক্রবার সকাল সাড়ে ১১টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল পুলিশ ফাঁড়ির নায়েক আবু হামিদ বলেন, ‘সকালে বৃষ্টিপাতের সময় সড়কে অপেক্ষমান হালিশহর ফইল্ল্যাতলী এলাকায় বজ্রপাতে আমজাদ হোসেন মারা যায়।

গাইবান্ধা : জেলার সদর উপজেলার লক্ষীপুর ইউনিয়নের খোর্দ্দ মালীবাড়ি পূর্বপাড়া গ্রামে বজ্রপাতে মারা গেছেন সিরাজুল ইসলাম। শুক্রবার সকালের দিকে বজ্রপাতে তার মৃত্যু হয়।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, সকাল ১১টার দিকে সিরাজুল ইসলাম বাড়ির পাশের জমিতে কাজ করছিলেন। এ সময় বজ্রপাত হলে সিরাজুল ইসলাম গুরুতর আহত হন। এসময় লোকজন উদ্ধার করে বাড়িতে নিয়ে যাওয়ার পথেই তিনি মারা যান।

মালিবাড়ি ইউপি চেয়ারম্যান নাজমুল হুদা বাদল ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

ঢাকা : ঢাকা সাভারে বজ্রপাতে মন্টু মিয়া (১৯) নামে এক স্কুলছাত্র নিহত হয়েছেন। এসময় আহত হযেছে আরও দু’জন। অন্যদিকে, ধামরাই উপজেলার বালিয়া ইউনিয়নের বাস্তা নয়াচর এলাকায় মনির হোসেন (১৪) নামের এক কিশোর নিহত হয়েছে।

শুক্রবার (১৩ মে) দুপুরে সাভার পৌর এলাকা ও ধামরাইয়ের বালিয়ায় বজ্রাঘাতে এ দু’জনের মৃত্যু হয়।

সুনামগঞ্জ : সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুরে বজ্রপাতে আমির আলী (২৫) নামে এক কৃষকের মৃত্যু হয়েছে। শুক্রবার সকালে উপজেলার কলকলিয়া ইউনিয়নের কামারখাল গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। তিনি ওই গ্রামের আব্দুর রউফের ছেলে।

স্থানীয়রা জানান, সকালে আমির আলী তার নিজ বাড়ির সামনে ধান শুকানোর কাজ করছিলেন। এ সময় হঠাৎ বজ্রপাতে ঘটনাস্থলেই তিনি মারা যান।

এদিকে জগন্নাথপুর উপজেলার রাণীগঞ্জ ইউনিয়নের বাঘময়না গ্রামে বজ্রপাতে সামাদ মিয়া (৯) নামে এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে। সে ওই  লাকার কৃষক বিকি মিয়ার ছেলে। শুক্রবার বিকেলে সে বাবার জন্য মাঠে ভাত নিয়ে যাচ্ছিলো। এসময় বজ্রপাতে ঘটনাস্থলেই সে মারা যায়।

এ ব্যাপারে জগন্নাথপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মুরছালিন ২ জনের মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

টাঙ্গাইল : টাঙ্গাইলের ভূঞাপুর উপজেলায় বজ্রপাতে ২জনের মৃত্যু হয়েছে। শুক্রবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে এ বজ্রপাতের ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলেন, উপজেলার খড়ক গ্রামের আব্দুস ছালামের ছেলে আনিসুর রহমান (১৪) ও পলিশা এলাকার মোকলেছুর রহমানের মেয়ে লিমা আক্তার (১৩)।

স্থানীয়রা জানান, জমি থেকে ধানের বোঝা আনার সময় বজ্রপাতের শিকার হয়ে আনিসুর (১৪) রহমান ঘটনাস্থলেই মারা যায়। আর লিমা (১৩) বাড়ির উঠান থেকে ধান নেয়ার সময় বজ্রঘাতে আহত হয় তাকে হাসপাতালে নেয়া হলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক চিকিৎসক ডা. জাহিদুজ্জামান জুয়েল এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

যশোর : যশোরে বাড়ির পাশের মাঠ থেকে গরু আনতে গিয়ে বজ্রপাতে ইয়ার আলী (৭০) নামে বৃদ্ধ নিহত হয়েছেন। এ সময় বজ্রপাতে তার স্ত্রী আলেয়া বেগম (৬৫) আহত হয়েছেন।

শুক্রবার বিকেলে যশোর শহরতলীর সুজলপুরে এ ঘটনা ঘটে। নিহত ইয়ার আলী ওই গ্রামের মৃত আবদুল হক মোল্যার ছেলে।

নিহতের ছেলে ইউনুচ আলী জানান, বিকেলে বৃষ্টি শুরু হলে বাড়ির পাশের মাঠে তার বাবা ইয়ার আলী গরু আনতে যান। কিন্তু চারটি গরু পিতা একা সামাল দিতে না পারায় তার মা আলেয়া বেগম সহযোগিতা করতে যান। এসময় বজ্রপাতে তারা দুই জনে মারাত্মক আহত হয়। তাদের উদ্ধার করে যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে নেয়া হলে চিকিৎসক ইয়ার আলীকে মৃত ঘোষণা করেন।

চাঁদপুর : চাঁদপুরের মেঘনা নদীতে বজ্রপাতে চলন্ত কার্গোর শ্রমিক নবীর হোসেন (২৫) মারা গেছেন। এ সময় কার্গোর সুকানি রাকিব হোসেন (২৬) আহত হয়েছেন।

শুক্রবার (১৩ মে) দুপুর ১টার দিকে বালিভর্তি কার্গো (নসিব-২) এ ঘটনা ঘটে। নিহত নবীর হোসেন লক্ষ্মীপুর কমলনগরের চরফোরকান গ্রামের মোহাম্মদ হোসেনের ছেলে, আহত রাকিব একই এলাকার বশির হোসেন মাঝির ছেলে।

চাঁদপুর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মামুনুর রশিদ মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

মাগুরা : মাগুরা সদর উপজেলার কাপাসহাটী গ্রামে বজ্রপাতে তুহিন শেখ (২২) নামে এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে।

শুক্রবার বিকেলে এ ঘটনা ঘটে। তুহিন ওই গ্রামের হেলাল উদ্দিন শেখের পুত্র।

নিহতের পিতা হেলাল শেখ জানান, বিকেলে কাপাসহাটি  গ্রামে বাড়ির পাশের একটি রাস্তা দিয়ে যাবার সময় তুহিনের ওপর বজ্রপাত পড়ে। এ সময় তাকে অচেতন অবস্থায় মাগুরা সদর হাসপাতালে নেয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত্য ঘোষণা করেন।

সদর হাসপাতালের জরুরি বিভাগে কর্মরত ব্রাদার আব্দুল আজিজ জানান, হাসপাতালে আসার আগেই তুহিনের মৃত্যু হয়েছে।

রাজবাড়ী : রাজবাড়ীর কালুখালি ও গোয়ালন্দে বজ্রপাতে তিনজনের প্রাণহানির খবর পাওয়া গেছে।