মেইন ম্যেনু

আজানকে পরিবর্তনের চেষ্টা, ‘ফেসবুকে সময় কাটানোর চাইতে নামাজ উত্তম’!

মিশরে একটি মসজিদের মুয়াজ্জিনের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেযা হচ্ছে – কারণ তিনি আজানকে ‘যুগোপযোগী’ করার চেষ্টায় এর ঐতিহ্যগত ভাষায় পরিবর্তন এনেছিলেন।

অভিযোগে বলা হয়, মাহমুদ আল-মোগাজী নামের ওই মুয়াজ্জিন – আজান দেবার সময় ‘ঘুমানোর চাইতে নামাজ উত্তম’ এই ঐতিহ্যগত ভাষার পরিবর্তন করে আজান দেন ‘ফেসবুকে সময় কাটানোর চাইতে নামাজ উত্তম’। বিবিসি বাংলা।

নীলনদের অববাহিকায় কাফর আল-দাওয়ার নামে এক শহরের মসজিদে এ ঘটনা ঘটে। জানা গেছে ‘ফেসবুকে সময় কাটানোর চেয়ে নামাজ উত্তম’ – মসজিদ থেকে এই অভিনব আজান শুনতে পেয়ে স্থানীয় লোকেরা ক্ষুব্ধ হয়ে ওঠে, এবং মি. আল-মোজীর বিরুদ্ধে এক অভিযোগ দায়ের করেন।

এর পর মি. আল-মোগাজীকে সাময়িকভাবে বরথাস্ত করা হয়, এবং মিশরের ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয় তার বিরুদ্ধে ‘আজানের ভাষায় পরিবর্তনের অভিযোগে’ আইনী ব্যবস্থা নিচ্ছে।

তবে মুয়াজ্জিনেআল-মোগাজী এর প্রতিবাদ করছেন। তিনি স্থানীয় এক টিভির চ্যাট-শো অনুষ্ঠানে উপস্থিত হয়ে বলেন, তিনি এর প্রতিবাদে অনশন ধর্মঘট করছেন। তিনি বলছেন, তিনি রাষ্ট্রপতি আবদুল ফাত্তাহ আল-সিসির কাছেও আবেদন জানাচ্ছেন যেন তাকে এ অভিযোগ থেকে অব্যাহতি দেয়া হয়।