মেইন ম্যেনু

আজীবন বেঁচে থাকতে রোবট হবেন রাশিয়ান ধনকুবের!

রাশিয়ার এক ধনকুবের চিরকাল বেঁচে থাকার জন্য উচ্চভিলাষী পরিকল্পনা করেছেন আর তা হচ্ছে তিনি রোবট হয়ে সারাজীবন বেঁচে থাকবেন।

৩৫ বছর বয়সী এই কোটিপতি ব্যবসায়ীর নাম দিমিত্রি ইটসকব। তিনি তার এই স্বপ্নপূরণের জন্য এ প্রকল্পে স্নায়ু বিজ্ঞানী, অন্তর্জ্ঞান গবেষক ও রোবট ইঞ্জিনিয়ারদের সাহায্যে নেবেন। এজন্য তিনি ‘২০৪৫ ইনিসিয়েটিভ’ নামক একটি গবেষণা প্রতিষ্ঠান চালু করেছেন।

তার গবেষণা প্রতিষ্ঠানটির লক্ষ্য হচ্ছে, মৃত্যুর পরে রোবটিক শরীরের মধ্যে মানুষের ব্যক্তিত্ব স্থানান্তর করে অমরত্ব দান করা। আর যারা রোবটিক শরীরে নিজের ব্যক্তিত্বের মাধ্যমে বেচে থাকতে চান, তাদেরকে মৃত্যুর আগেই স্বেচ্ছায় নিজের ব্রেইন দিতে হবে প্রতিষ্ঠানটিকে।

কোটিপতি ব্যবসায়ী দিমিত্র ইটসকব নিজের প্রতিষ্ঠানের এ গবেষণায় অংশগ্রহণের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। তিনি তার ব্রেইন কম্পিউটারে হস্তান্তর করবেন, যাতে শারীরিক মৃত্যুর পরও সারাজীবন বেঁচে থাকতে পারেন।

তিনি বলেন, ‘আমি ১০০% নিশ্চিত এমনটা সম্ভব হবে, তা না হলে আমি এটা শুরু করতাম না। আমি মৃত্যুর ভয় থেকে এই উৎসাহ পেয়েছি। অমরত্বের প্রযুক্তি যদি সফল না হয়, তার মানে হচ্ছে, আমি ২০৪৫ সালের মধ্যে নিশ্চিতভাবেই মৃত্যুবরণ করবো।’

এ গবেষণায় তার প্রতিষ্ঠান আগামী ৩০ বছরের মধ্যে সফল হবে বলে জানানো বলে দাবী করা হয়েছে। ২০৪৫ সালের মধ্যেই ব্রেইন কৃত্রিম শরীরে স্থানান্তর ও হলোগ্রামের মতো চেহারা তৈরি করা সম্ভব হবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করা হয়েছে।

তবে বিশ্বের অনেক গবেষক দিমিত্রি ইটসবকের এই উদ্যোগের সফলতা অসম্ভব বলে মনে করছেন। নিজের ব্রেইন রোবটের মধ্যে স্থানান্তর করে জীবন পাওয়া খুব কঠিন কিছু হবে বলেই অভিমত অনেক গবেষকদের।