মেইন ম্যেনু

আজ চৈত্রসংক্রান্তি, বসন্তের বিদায়

প্রকৃতির অমোঘ নিয়মে বিদায় নিচ্ছে আরও একটি বছর। বিদায় নিচ্ছে আরও একটি বসন্ত। ১৪২২ বঙ্গাব্দের শেষ দিন ৩০ চৈত্র আজ। আজ বাঙালির বর্ষবিদায়ের দিন চৈত্রসংক্রান্তি। চৈত্রের শেষ দিন।

বাংলা সন ১৪২২ তার শেষ গান গেয়ে বিদায় নেবে আজ। বসন্তকে বিদায় জানিয়ে আসবে নতুন বছর। একদিন পরেই সারাবাংলা বরণ করবে বাংলা সন ১৪২৩ কে। বৈশাখ আসবে নতুন দিনের বার্তা নিয়ে। আবহমানকাল থেকে নানা লোকাচার উৎসব অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে নতুন বছরকে বরণ করে আসছে বাংলাদেশের মানুষ। মূল আয়োজন গ্রামে হলেও নগর সংস্কৃতিতে এর কদর এখন যথেষ্ট। শেকড় সন্ধানী মানুষ বর্ণাঢ্য আয়োজনে আজ উদযাপন করবে চৈত্রসংক্রান্তির পার্বণ। একই সঙ্গে নতুন বছরকে স্বাগত জানানোর প্রস্তুতি সম্পন্ন করবে সারা দেশ।

চৈত্রসংক্রান্তিকে কেন্দ্র করে সব ভেদাভেদ ভুলে গিয়ে শেকড়ের টানে ঘর ছেড়ে বাইরে বেরিয়ে আসে বাঙালিরা। পয়লা বৈশাখকে বরণ করার জন্য চলছে দেশজুড়ে উৎসবের প্রস্তুতি। এখন শেষ পর্যায়ে। চৈত্রসংক্রান্তি উপলক্ষে নানা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে।

বাংলা সনের শেষ দিনটিতে আজ চৈত্রসংক্রান্তির মেলা ও নানা পর্ব মনে করিয়ে দিচ্ছে নতুন বছর দোরগোড়ায়। চৈত্রসংক্রান্তি উপলক্ষে লোকমেলার আয়োজন গ্রামগঞ্জেই হয় বেশি। মেলা, গান-বাজনা, যাত্রাপালাসহ নানা আয়োজনে উঠে আসে লোকজ সংস্কৃতির নানা সম্ভার। হিন্দুধর্মাবলম্বীরা মেতে ওঠে পূজা-অর্চনায়। চৈত্রসংক্রান্তির দিন সনাতন ধর্মাবলম্বীরা শাস্ত্র মেনে স্নান, দান, ব্রত, উপবাস করে কাটান। নিজ নিজ বিশ্বাস অনুযায়ী অন্য ধর্মাবলম্বীরাও নানা আচার অনুষ্ঠান পালন করেন।

প্রতিবারের ন্যায় এবারও নানা আয়োজনে চৈত্রসংক্রান্তি উৎসব উদযাপন করবে বাঙালি। দেশব্যাপী থাকবে উৎসব অনুষ্ঠান।

বছরের শেষ দিনকে ঘিরে আবহমানকাল থেকে এই জনপদে নানা আয়োজন সাজানো হয়। বর্ষবিদায় এবং বর্ষবরণের ঐতিহ্য বাঙালীর হাজার বছরের। বাংলা বর্ষপঞ্জির শেষ মাস চৈত্রের নামকরণ হয়েছিল চিত্রা নক্ষত্রের নামে। চৈত্রের শেষ দিনে প্রতি বছরের মতো এ বছরও রাজধানী জুড়ে রয়েছে নানা আয়োজন।

সারাদেশের মতো রাজধানীর বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন বুধবার নানা আয়োজনে চৈত্র সংক্রান্তি উদযাপন করবে। বর্ষবিদায়ের বড় আয়োজনটি যৌথভাবে করছে চ্যানেল আই ও সুরের ধারা। চৈত্র সংক্রান্তির আয়োজন সাজানো হয়েছে কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের নাটকের গান দিয়ে। এসব আয়োজনে সুরের ধারার শিল্পীরা ছাড়াও অতিথি শিল্পী হিসেবে অংশ নেবেন দেশের গুণী ও বরেণ্য শিল্পীরা।

বাংলাদেশ গ্রুপ থিয়েটার ফেডারেশন এবং শিল্পকলা একাডেমির যৌথ উদ্যোগে জাতীয় নাট্যশালার পরীক্ষণ থিয়েটার হলে চৈত্র সংক্রান্তির অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে। লোকসঙ্গীত, বাউল গান এবং আবৃত্তি দিয়ে সাজানো হয়েছে এ আয়োজন।

বৈশাখকে ঘিরে পাঁচদিনব্যাপী উৎসবের অংশ হিসেবে বুধবার বেঙ্গলে অনুষ্ঠিত হবে চৈত্র সংক্রান্তির নানা অনুষ্ঠানমালা। চারুকলার বকুলতলায় চারুকলা অনুষদে বিকেল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত নানা সাংস্কৃতিক কর্মকান্ডের মধ্য দিয়ে চৈত্র সংক্রান্তি উদযাপন করা হবে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসিতে চৈত্রসংক্রান্তীর অনুষ্ঠান আয়োজন করেছে আবৃত্তি সংগঠন হরবোলা। সন্ধ্যা ৭টায় এই অনুষ্ঠান শুরু হবে। অনুষ্ঠানে থাকবে আবৃত্তি, নাচ, গান। এছাড়াও বিভিন্ন সংগঠনের আয়োজনে রাজধানী জুড়ে রয়েছে চৈত্রসংক্রান্তীর বেশ কিছু অনুষ্ঠান।