মেইন ম্যেনু

আটকে পড়া শিশুকে বাঁচিয়ে সাসপেন্ড দুই দমকলকর্মী

১৮ মাসের এক শিশুকন্যা আটকে পড়েছে দেখে আর থাকতে পারেননি দুই দমকলকর্মী। খবরটা শুনেই দ্রুত চলে আসেন ঘটনাস্থালে। শিশুটিকে নিরাপদে নামিয়ে এনে দমকলের গাড়িতে করে হাসপাতালে নিয়ে যান। বর্তমানে শিশুকন্যাটি সুস্থ আছেন বলে জানা যায়।

এসব কারণে বাহবা দিতেই হয় ফালমাউথ ভলান্টিয়ার ফায়ার ডিপার্টমেন্টের দমকলকর্মী জেমস কেলি ও ভার্জিল ব্লুমকে। সবার দৃষ্টিতে এমটাই হওয়ার কাথা তাই না? কিন্তু না, এঘটনার এখানেই শেষ নয়।

কেলি ও ব্লুমকে এই সাহায্য করার কারণে সাসপেন্ড হতে হয়েছে। কারণটা হল, ভার্জিনিয়াতে দমকল ইঞ্জিনের লাইসেন্স যাত্রী পরিবহন করার জন্য দেয়া হয় নি। তার থেকেও বড় কথা অ্যাম্বুল্যান্সের মতো কোনো ব্যবস্থা দমকলে ছিল না। তাই, ওই শিশুকন্যাকে উদ্ধার করে নিয়ে যাওয়ার জন্য তাদের সাসপেন্ড করে কর্তৃপক্ষ। ঘটনাটি ভার্জিনিয়ার ফ্রেডরিক্সবার্গের।

ওই শিশুকন্যার বাবা ব্রায়েন দুই দমকল কর্মকর্তাকে বাহবা জানিয়েছেন। তারা সাসপেন্ড হয়ে যাওয়ায় দুঃখপ্রকাশও করেছেন। তিনি জানিয়েছেন, মেয়ে আটকে পড়ায় দিগ্বিদিক জ্ঞানশূন্য হয়ে গিয়েছিলাম। ঠিক সেই সময়তেই দমকল নিয়ে যাচ্ছিলেন কর্মকর্তারা। আমাদের ডাকে সাহায্যের জন্য এগিয়ে আসেন। নিস্তেজ শিশুকে বের করে হাসপাতালে নিয়ে যান তারা।

ওই দুই কর্মকর্তা অবশ্য কর্তৃপক্ষের প্রশ্নের সামনে দাঁড়াতে পারেননি। তারা জানিয়েছিলেন, নিকটবর্তী কোনো হাসপাতাল বা মেডিক্যাল কেয়ার ইউনিট না থাকায় দমকলে করে হাসপাতালে নিয়ে যেতে বাধ্য হন। কিন্তু, মানবিক যুক্তি অগ্রাহ্য করে দমকল কর্তৃপক্ষ। সাসপেন্ড করা হয় তাদের।