মেইন ম্যেনু

আত্মসমর্পণকারী ১০ বনদস্যু কারাগারে

বাগেরহাটের মংলা থানায় অস্ত্র আইনে আটক সুন্দরবনের কুখ্যাত বনদস্যু মাস্টার বাহিনীর প্রধান মোস্তফা শেখ ওরফে কাদের মাস্টারসহ ১০ জনকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। বুধবার বিকেলে বাগেরহাট সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট সিরাজুল ইসলাম এ নির্দেশ দেন।

মঙ্গলবার রাতে র্যাব-৮ এর ডিএডি হাবিবুর রহমান বাদী হয়ে বনদস্যু মাস্টার বাহিনীর প্রধান মোস্তফা শেখ রওফে কাদের মাস্টারসহ ১০ বনদস্যুর বিরুদ্ধে মংলা থানায় অস্ত্র আইনে মামলা দায়ের করেন। এই মামলায় বুধবার বিকেলে তাদের অস্ত্র আইনে আটক দেখিয়ে মংলা থানা পুলিশ আদালতে প্রেরণ করে।

এর আগে মঙ্গলবার বিকেল ৩টায় সুন্দরবনের কুখ্যাত বনদস্যু মাস্টার বাহিনীর প্রধান মোস্তফা শেখ ওরফে কাদের মাস্টারসহ ১০ বনদস্যু ৫২টি দেশি-বিদেশি আগ্নেয়াস্ত্র ও পাঁচ হাজার গুলিসহ বিভিন্ন উপকরণ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামালের হাতে আনুষ্ঠানিক ভাবে তুলে দিয়ে স্বাভাবিক জীবনে ফিরতে আত্মসমর্পণ করেন।

মংলা থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শেখ লৎফর রহমান জানান, মংলা থানায় বনদস্যু মোস্তফা শেখ ওরফে কাদের মাস্টারের নামে ইতিপূবে অস্ত্র আইনে দুইটি মামলা ছিল। সর্বশেষ গত ৩১ মে রাতে র্যাব-৮ এর ডিএডি বাদী হয়ে অস্ত্র আইনে মোস্তফা শেখ ওরফে কাদের মাস্টারসহ ১০ বনদস্যুর নামে মামলা দায়ের করেন।

তিনি আরো জানান, বনদস্যু মাস্টার বাহিনীর প্রধান মোস্তফা শেখ ওরফে কাদের মাস্টার (৪৭), সেকেন্ড ইন কমান্ড সোহাগ আকন (৩৭), ফজলু শেখ (৩৫), সোলায়মান শেখ (২৮), মো. শাহিন শেখ (২৮), মো. হারুন (২৪), মো. আরিফ সরদার (২২), মো. আসাদুল ইসলাম (২৭), সুমন সরকার (৩৪) ও মো. সুলতান খানকে (৫৮) বুধবার দুপুরে অস্ত্র আইনে আটক দেখিয়ে বাগেরহাট আদালতে পাঠানো হয়েছে।

আদালত সূত্রে জানা গেছে, আটক বনদস্যুদের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট সিরাজুল ইসলামের আদালতে হাজির করার কথা রয়েছে। তবে বিকেল সোয়া ৩টা পর্যন্ত তাদের আদালতে আনা হয়নি।