মেইন ম্যেনু

আদালতের নির্দেশনা অনুযায়ী লিটনের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, শিশুকে গুলি করে হত্যাচেষ্টার মামলায় গাইবান্ধার সাংসদ মনজুরুল ইসলাম লিটনের বিরুদ্ধে আদালতের নির্দেশনা অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বুধবার দুপুরে সচিবালয়ে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে অনুষ্ঠিত বার্ষিক কর্ম সম্পাদন (এপিএ) চুক্তি অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘যে নির্দেশনা (আদালত) দিয়েছেন, তা আমাদের কাছে এলে প্রশাসন সে অনুযায়ীই কাজ করবে ‘

তিনি বলেন, ‘কেউ বিচারের ঊর্ধ্বে নন। বিচারকরা যেভাবে নির্দেশনা দেন, আমাদের প্রশাসন ঠিক সেভাবেই কাজ করে।’

বুধবার সাংসদ লিটনকে হাইকোর্টের দেওয়া আত্মসমর্পণের নির্দেশ স্থগিত করেছেন চেম্বার বিচারপতি। গত সোমবার গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জে শিশু সৌরভের দুই পায়ে গুলি করার মামলায় এমপি লিটনের আগাম জামিনের আবেদন খারিজ করে তাকে আগামী ১৮ অক্টোবরের মধ্যে গাইবান্ধার বিচারিক আদালতে আত্মসমর্পণের নির্দেশ দেন হাইকোর্ট। বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি ভীষ্মদেব চক্রবর্তীর অবকাশকালীন হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

অপর এক প্রশ্নের জবাবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান বলেন, বিদেশি নাগরিকদের হত্যাকাণ্ডের তদন্ত শেষ পর্যায়ে চলে এসেছে। তদন্ত দ্রুত গতিতে চলছে। এসব ঘটনায় যারা জড়িত মিডিয়ার মাধ্যমে তাদের দেশবাসীর সামনে হাজির করা হবে।

তিনি বলেন, খুব শীঘ্রই ইতালি ও জাপানি নাগরিক হত্যাকারীদের সামনে আনা হবে। একই সঙ্গে পাদ্রি সিজার ও পীর খিজির খানের হত্যা মামলারও তদন্ত শেষ হবে।

গত ৩ অক্টোবর রংপুরের কাউনিয়ার আলুটারিতে দুর্বৃত্তদের গুলিতে জাপানি নাগরিক কুনিও হোশি নিহত হন। তিনি রংপুর শহরের মুন্সীপাড়ায় একটি বাড়িতে ভাড়া থাকতেন। ওই বাড়ির দুই ছেলে জাপানে থাকেন। তাদের সঙ্গে পরিচয়ের সূত্রেই বাংলাদেশে এসে রংপুরের কাউনিয়ায় ঘাসের খামার গড়েছিলেন কুনিও হোশি।

এর আগে ২৮ সেপ্টেম্বর রাজধানীর গুলশানের কূটনৈতিক পাড়ায় দুর্বৃত্তের গুলিতে নিহত হন তাভেল্লা সিজার নামে এক ইতালীয় নাগরিক। তিনি নেদারল্যান্ডসভিত্তিক আইসিসিও-বাংলাদেশ নামে একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের প্রুফস প্রকল্পের ব্যবস্থাপক ছিলেন।