মেইন ম্যেনু

আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে বিলুপ্ত ছিটমহলে হামলা-লুটপাট-বৃক্ষ কর্তন : আহত ১১

কে,এম, গোলাম রব্বানী, কুড়িগ্রাম: কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ী উপজেলার বিলুপ্ত ছিটমহল দাশিয়ারছড়ায় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষের বাড়িঘরে হামলা, দোকানঘর লুটপাট এবং ক্ষেতের ফসল ও গাছপালা কেঁটে ফেলার অভিযোগ উঠেছে। এতে উভয়পক্ষের ১১ জন আহত হয়। ঘটনাটি ঘটেছে বৃহস্পতিবার মধ্যরাতে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বিলুপ্ত ছিটমহল দাশিয়ারছড়ার কালিরহাট বাজার এলাকার ময়েন উদ্দিন ময়না ভাটিয়ার ছেলে আবুবকর, হাসমত ভাটিয়ার ছেলে আপেল, আক্কাস ও মোজাম্মেলের নেতৃত্বে ৩৫ থেকে ৪০ জনের একটি বহিরাগত সশস্ত্র সন্ত্রাসী দল মোটর সাইকেলযোগে কালিরহাট বাজারে এসে তান্ডব শুরু করে। তারা প্রথমে বাজারের জয়নাল আবেদীনের চায়ের দোকানে আকস্মিকভাবে হামলা চালায়।

এসময় ওই দোকানে চা পানরত হুমায়ুন (২৫), এনামুল (৪১) ও জোবায়দুলকে (৩২) বেধড়ক মারপিট ও কুপিয়ে জখম করে। এসময় আহতদের উদ্ধারে এগিয়ে আসা কুদ্দুস (৬০), হাসেন (৩৫), কালুগাজি (৪০), কলিমুদ্দিন (৫০), কানু মিয়া (৩৭) আক্কাস আলী (২৪), আপেল মিয়া (৩৫) এবং শিশু শাহিন (৮)কে কুপিয়ে আহত করে। মূহুর্তে কালিরহাট বাজার ফাঁকা হয়ে যায়। পরে সন্ত্রাসীদের প্রতিরোধে এলাকাবাসী এগিয়ে এলে তারা কালিরহাট বাজার ত্যাগ করে পার্শ্ববর্তী কামালপুর গ্রামের মৃত: ভেলভেলুর ছেলে আফজাল হোসেন ও করিমের বাড়ি ভাংচুর করে। এ সময় ঘরের ভিতরের টেবিল, শোবার খাট, ড্রেসিং টেবিলসহ সবকিছু ভাংচুর করে।

আফজাল হোসেনের ছেলে আনোয়ার হোসেন বলেন, সন্ত্রাসীরা তাদের নগদ ৩৯ হাজার টাকা ও তার স্ত্রী, মা ও বোনের ব্যবহৃত অলঙ্কার লুট করে নিয়ে যায়। পরে তারা ওই এলাকার নিজাম উদ্দিনের সুপারি বাগানের প্রায় ৫০টি চারা গাছ, ময়েন উদ্দিন ময়নার শতাধিক বনজ গাছ কেটে ফেলে আধা বিঘা বোরো ধান ক্ষেত তছনছ করে। এ সময় পুরো গ্রামে আতঙ্কের সৃষ্টি হয। নারী ও শিশুরা ভয়ে পালিয়ে আত্মরক্ষা করে।

আহতদের প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে ছেড়ে দেওয়া হলেও গুরুত্বর আহত আক্কাস ও আপেলকে ফুলবাড়ী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
দাশিয়ারছড়ার কালিরহাট বাজার এলাকার মোজাফফর ও নুর আলম জানান, আমরা স্বাধীন হয়েছি বটে। কিন্তু টাউট বাটপারদের হাত থেকে এখনও রক্ষা পাইনি।

গত বছরের ১ আগস্ট বিলুপ্ত এ ছিটমহল বাংলাদেশের মূল ভূ-খন্ডের মধ্যে অন্তর্ভূক্তি হওয়ার পর থেকে এক শ্রেণির টাউট বাটপার ছিটমহলের পরিবেশকে অশান্ত করে চলেছে। একটির পর একটি অপ্রীতিকর ঘটনার সৃষ্টি করে নিজের ফায়দা হাসিলে তৎপর হয়ে উঠছে তারা।

ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে ফুলবাড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সেলিম মালিক জানান, ঘটনাটি শুনেছি। ইতোমধ্যে ঘটনাস্থলে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। অভিযোগ পেলেই ব্যবস্থা নেয়া হবে।