মেইন ম্যেনু

আপনার গায়ে কি খুব বেশি রোম? লজ্জিত নয়, জেনে নিন কেন গর্বিত হবেন…

গায়ে বেশি রোম বলে অনেকে লজ্জিত বোধ করেন। যদিও একসময়ে হিন্দি ছবির এক তুখোড় অভিনেতার রোমশ শরীরই ব্যবহৃত হয়েছিল সেক্স সিম্বল হিসেবে।

উপরের ছবিটি দেখছেন? অনিল কপূরের মতো দুরন্ত অভিনেতার রোমশ শরীরকে পরিচালকরা সেক্স সিম্বল হিসেবে ব্যবহার করতে চেয়েছিলেন। যদিও একটা সময় পরে পুরো বিষয়টি হাস্যকর হয়ে দাঁড়ায়। বিভিন্ন রসিকতা ছড়িয়ে পড়ে।

তবে তাতে অনিল কপূরের কিছু যায়-আসেনি। কারণ তাঁর অসামান্য অভিনয় প্রতিভা। যে অভিনয় দেখে বোঝা যেত, ইনি অভিনয়টা করেন মস্তিষ্ক এবং হৃদয়ের অনবদ্য এক মিশেলে। অনিল কপূরের প্রতিভা কিন্তু রোমশ শরীর নিয়ে ঠাট্টায় চেপে রাখা যায়নি।

কেন অনিল কপূরকে নিয়ে এত কথা বলা হল? কারণ বিভিন্ন গবেষণা। যাতে একাধিকবার প্রমাণিত হয়েছে একটি সারসত্য। শরীরে রোম বেশি থাকলে যে সব পুরুষকে নিয়ে মজা করা হয়, তাঁরা কিন্তু আদতে অত্যন্ত মেধাবী এবং বুদ্ধিমান হয়ে থাকেন। তাঁদের প্রজ্ঞা সকলের ঈর্ষার কারণ হয়ে দাঁড়ায়। এবং সেই কারণেই এঁরা এত ঠাট্টার শিকার হন।

গবেষকরা বলছেন, এঁরা মেধাবী এবং অত্যন্ত ভাল মনের মানুষ। ফলে, এঁরা অতি সহজেই জনপ্রিয়তা অর্জন করেন। ঠিক যেভাবে বলিউডে অনিল কপূর আজ একটি প্রতিষ্ঠান হয়ে উঠেছেন, সেভাবে এঁরাও ক্রমশ প্রতিষ্ঠিত হতে থাকেন। ঠিক এই কারণেই এঁরা হয়ে ওঠেন ঈর্ষার পাত্র। এঁদের মেধার সঙ্গে টেক্কা দিতে না পেরেই শরীরের রোম নিয়ে ঠাট্টা শুরু হয়ে যায়। উদ্দেশ্য একটিই, মনোবল ভেঙে দেওয়া।