মেইন ম্যেনু

আপনার টুথপেস্ট টিউবের এই দাগগুলো লক্ষ্য করেছেন? জানেন কেন থাকে?

টুথপেস্টের টিউবের ছবি দিয়ে এই পোস্টে দাবি করা হয়, টুথপেস্ট টিউবের একেবারে শেষপ্রান্তে লাল, সবুজ বা কালো যে স্ট্রাইপগুলো থাকে সেগুলো টুথপেস্টের উপাদান সম্পর্কে বিশেষ বার্তা দেয়। কীরকম?

ফেসবুকে এই ধরনের একটি পোস্ট হয়তো চোখে পড়েছে আপনার। কয়েকটা টুথপেস্টের টিউবের ছবি দিয়ে এই পোস্টে দাবি করা হয়, টুথপেস্ট টিউবের একেবারে শেষপ্রান্তে লাল, সবুজ বা কালো যে স্ট্রাইপগুলো থাকে সেগুলো টুথপেস্টের উপাদান সম্পর্কে বিশেষ বার্তা দেয়। কীরকম? বলা হয়,

সবুজ দাগের অর্থ, এই টুথপেস্ট একেবারে প্রাকৃতিক উপাদান দিয়ে তৈরি।

নীল দাগের অর্থ, এই টুথপেস্টে প্রাকৃতিক উপাদানের সঙ্গেই মেশানো রয়েছে কিছু ওষুধ।

লাল দাগের অর্থ, প্রাকৃতিকের সঙ্গে রাসায়নিক উপাদানের সংমিশ্রণ।

কালো দাগের অর্থ, এই টুথপেস্টে সমস্ত ধরনের উপাদানই সংমিশ্রিত রয়েছে।

কিন্তু প্রশ্ন হল, এই দাবির সত্যতা কতখানি?
টুথপেস্ট নির্মাতারা জানাচ্ছেন, আদপে ফেসবুকের অজস্র ভুয়ো পোস্টের মতো এটিও একটি লোক-ঠকানো পোস্ট। টুথপেস্ট টিউবের এই রঙিন দাগগুলোর সঙ্গে টুথপেস্টের উপাদানের কোনও সম্পর্কই নেই। টুথপেস্ট কোন উপাদান দিয়ে তৈরি তা লেখা থাকে টিউবের গায়েই। কাজেই আলাদা করে কোনও সাংকেতিক চিহ্নের সাহায্যে তা জানানোর দরকার পড়ে না। আসলে কারখানায় টুথপেস্ট টিউব তৈরির সময়ে এই দাগগুলি ব্যবহার করা হয় টিউবের সংখ্যা গণনা ও তার প্যাকেজিং-এর সুবিধার্থে। এই দাগগুলিকে বলা হয় আই মার্ক, বা কালার মার্ক, বা প্রিন্টেড মার্ক। কারখানায় স্বয়ংক্রিয় যন্ত্র যখন টুথপেস্ট টিউব তৈরি করে ও তাকে বাক্স বন্দি করে তখন যন্ত্রের লাইট বিম টিউবের গায়ে লাগানো এই আই মার্কের মাধ্যমেই বুঝতে পারে কতগুলি টিউব নিয়ে কাজ করা হচ্ছে, কিংবা কখন যন্ত্র চালু হবে এবং কখন বন্ধ হবে। কাজেই এই দাগ যান্ত্রিক কাজের সুবিধার্থে তৈরি করা একটি সাংকেতিক ভাষামাত্র। এর সঙ্গে টুথপেস্টের উপাদানের কোনও সম্পর্কই নেই।