মেইন ম্যেনু

আপনার মস্তিষ্কের স্থায়ী ক্ষতি করছে যে বাজে অভ্যাসগুলো

কখনো কি মনে হয়েছে আপনি আগে যেমন ভাবে চিন্তা করে কাজ করতে পারতেন, যা করতে পারতেন এখন তার থেকে অনেক কম পারেন? আগের তুলনায় অনেক সহজেই মাথা গরম হয়ে যায়, জানা জিনিস মনে করতে পারেন না, ভালো করে চিন্তা করতে পারেন না এমন সব সমস্যার জন্য কিন্তু আপনি নিজেই দায়ী। কারণ আপনারই করা কিছু ভুল কাজে আপনার মস্তিষ্ক হারাচ্ছে কর্মক্ষমতা।

১) অতিরিক্ত চিনি জাতীয় খাবার খাওয়া

অতিরিক্ত চিনি ও চিনি জাতীয় খাবার খাওয়া মস্তিষ্কের উপর বেশখারাপ প্রভাব ফেলে। গবেষণায় দেখা দীর্ঘদিন টানা চিনি জাতীয়খাবার খাওয়া হলে মস্তিষ্কের কর্মক্ষমতা হ্রাস পায় এবং কোনো কিছু সহজে শেখারক্ষমতা নষ্ট হয় ও স্মৃতিশক্তি কমে যায়। সুতরাং চিনি খাওয়ার ব্যাপারেসাবধান থাকুন।

২) প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ ধূমপান

ধূমপান শুধুমাত্র ক্যান্সার ধরণের রোগের কারণই নয়, নিকোটিনের কারণে মস্তিষ্কের কর্মক্ষমতাও নষ্ট হতে থাকে প্রতিনিয়ত। আবার অনেকে ধূমপান না করেও ধূমপানের ক্ষতিকর প্রভাবের কারণে বুদ্ধিমত্তাহারাতে থাকেন। গবেষণায় প্রকাশ পায়, ‘যে সকল শিশুরা পরোক্ষ ভাবে ধূমপান করছে তাদের সাধারণ শিশুর তুলনায় আইকিউবেশ কম’। অর্থাৎ যারা ধূমপান করে তারা যেমন ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন তেমনই কোনো না কোনো কারণে ধূমপানের ধোঁয়ার সংস্পর্শে এসে ক্ষতির সম্মুখীন হচ্ছেন অন্যেরাও।

৩) অসুস্থতার সময় জোর করে কাজ করা

অসুস্থতার সময় আমাদের মস্তিষ্ক এমনিতেই দুর্বল হয়ে পড়ে, এই সময়ে জোর করে কাজ করার কারণে আরও বেশী চাপ পড়ে অনেক ক্ষতি হয় মস্তিষ্কের। যার ফলে অনেক সময় স্থায়ী ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে পড়ে মস্তিষ্ক। এবং আপনি হারাতে থাকেন স্বাভাবিক কর্মোদ্যম।

৪) একবারে কয়েকটি কাজে মনোযোগ দেয়ার চেষ্টা

অনেকেই ভাবেন একসাথে দু তিন দিকে মনোযোগ দিতে পারা বেশ গর্বের বিষয়। কিন্তু আসলে ব্যাপারটি পুরো উল্টো। স্ট্যানফোর্ড ইউনিভার্সিটির একটিগবেষণায় দেখা যায়, যারা এক সময়ে একটিই কাজ করেন তাদের চিন্তা করার ক্ষমতাযারা একসাথে অনেক কাজ করতে যান তাদের তুলনায় বেশি। অনেক ক্ষেত্রে এমনও দেখা গিয়েছে যে একসাথে কয়েকটি ব্যাপারে মনোযোগ সংযোগের চেষ্টার কারণে মস্তিষ্কে অতিরিক্ত চাপ পড়ে মস্তিষ্কের স্থায়ী ক্ষতির সম্মুখীন হতে হয়েছে।

৫) মাত্রাতিরিক্ত মানসিক চাপ নেয়া

মানসিক চাপ শুধুমাত্র আপনার মানসিক শান্তির উপরেই নয় এটি আপনারমস্তিষ্কের উপরেও বেশ খারাপ প্রভাব ফেলছে। অতিরিক্ত মানসিক চাপ অ্যালঝেইমার্সরোগের ঝুঁকি অনেকাংশে বাড়িয়ে দেয় এবং মস্তিষ্কের স্থায়ী ক্ষতি করে। এতে করে লোপপেতে থাকে স্বাভাবিক বুদ্ধিমত্তা এবং মস্তিষ্ক হারায় কর্মদক্ষতা।

৬) রাতে না ঘুমানো

ইচ্ছে করে বা কাজের চাপে অনেকেরই রাতে পরিমিত খুব হয় না। এই কাজটি আপনার বুদ্ধিমত্তা, আপনার চিন্তা করার ক্ষমতা মোট কথা আপনার মস্তিষ্কের কর্মক্ষমতা কেড়ে নিচ্ছে। সারাদিনের পরিশ্রমের পর মস্তিষ্ক বিশ্রাম চায় রাতে এবং এই রাতের ঘুমের মধ্যেই মস্তিষ্কের নিউরন এবং ক্ষতিগ্রস্ত কোষের ক্ষতি পূরণ হতে থাকে। না ঘুমানোর কারণে ক্ষতিপূরণ হতে পারে না যার ফলে দিনে দিনে খারাপের দিকেই যেতে থাকে মস্তিষ্ক।

তথ্য সূত্র- Bad habits that can affect your brain slowly and seriously, modernghana.com

Things that kill your brain, sujonhera.com

লেখাটি রিভিউ করেছেন

ডঃ মাহমুদা পারভীন

মেডিসিন বিভাগ

আরবান হেলথ কেয়ার

সেক্টর-৩, রোড-১০

উত্তরা, ঢাকা-১২৩০