মেইন ম্যেনু

আপনার স্মৃতিশক্তি বাড়াবে এই সাত খাবার

নিজেদের স্মৃতিশক্তি তথা ব্রেইনের কার্যক্ষমতা বাড়াতে আমরা কত কিছুই না করি। মেডিটেশন,নানা ধরণের এক্সারসাইজ। কিন্তু এগুলোই পর্যাপ্ত নয়। আপনাকে দৈনন্দিন খাদ্য তালিকায় রাখতে হবে সেসব খাবার যা আপনার ব্রেইনের কার্যক্ষমতা বাড়িয়ে দেবে বহুগুণ, ফলে বৃদ্ধি পাবে স্মৃতি শক্তি। চলুন জেনে নেয়া যাক,খাবার গুলো কি কি।

১। জাম,স্ট্রবেরি বা লিচু জাতীয় ফল
আপনার বয়স যত বাড়বে বিভিন্ন জিনিস মনে রাখার ক্ষমতাও আপনার তত কমতে থাকবে। তাই প্রতিদিনের খাদ্য তালিকায় রাখতে পারেন জাম,লিচু,স্ট্রবেরি,কালোজাম বা আঙ্গুরের মত ফল। ফলগুলোতে রয়েছে এন্টি-অক্সিডেন্ট যা ব্রেইনের কোষের অক্সিডেশন এবং ক্রমাগত ক্ষয়ে যাওয়া রোধ করে। অর্থাৎ ব্রেইনের কার্যক্ষমতা বাড়িয়ে দেয়। ব্লু বেরীকে ব্রেইনের জন্য সবচেয়ে কার্যকর খাবার বলে ধরা হয়, কেননা তা আলঝেইমার রোগ প্রতিরোধে সহযোগিতা করে ও শেখার ক্ষমতা বাড়িয়ে দেয়।

২। সামুদ্রিক মাছ
বিভিন্ন সামুদ্রিক মাছে শুধু প্রচুর পুষ্টি উপাদান থাকে,যা মস্তিষ্কের কার্যক্ষমতা বাড়াতে কার্যকর ভূমিকা রাখে। মস্তিষ্কে থাকা ফ্যাটি এসিডের ৪০% হচ্ছে ডি এইচ এ, যা কিনা সামুদ্রিক মাছের তেলে পাওয়া যায় ওমেগা-৩ ফ্যাটি এসিড হিসেবে। বিশেষজ্ঞদের মতে এই ওমেগা-৩ ফ্যাটি এসিড ব্রেইনের বিভিন্ন কোষের মধ্যে সিগনাল আদান-প্রদান বাড়িয়ে দেয়।

৩। কফি
দীর্ঘদিন কফি পান করেন এমন ১৪০০ লোকের উপর চালানো গবেষণায় দেখা গিয়েছে, যারা দিনে তিন থেকে পাঁচ কাপ কফি পান করেন তাঁদের স্মৃতি ভ্রংশের রোগ অনেকটাই কম হয়। এদের তুলনায় যারা দিনে দুই কাপ কফি পান করেন তাদের ৪০ থেকে ৫০ বছর বয়সে আলঝেইমার রোগে আক্রান্ত হবার আশঙ্কা বেশি। ধারণা করা হয়,কফিতে থাকা ক্যাফেইন ও এন্টি-অক্সিডেন্ট ব্রেইনের কোষগুলোকে সুরক্ষিত করে।

৪। চকোলেট
ডার্ক চকোলেট,যাতে অন্তত ৭০% কোকো থাকে,মস্তিষ্কের দক্ষতা বাড়াতে কার্যকর ভূমিকা রাখে বলে গবেষণায় প্রমাণিত। এতে ফ্ল্যাভোনয়েড নামে এক ধরণের এন্টি-অক্সিডেন্ট থাকে,যা কিনা ব্রেইনের কোষকে রাখে সজীব ও কর্মক্ষম।

৫। ঘোল
দুধ থেকে তৈরি দই আমরা সবাই খাই,কিন্তু ঘোল অনেকেই খাই না। ঘোলে থাকে ভিটামিন বি-১২ এবং এই ভিটামিনের অভাবে স্মৃতিশক্তি ভয়াবহভাবে হ্রাস পায়। ঘোলে থাকা ভিটামিন বি-১২ বয়সজনিত স্মৃতিশক্তি হ্রাস রোধ করে। চিকিৎসাবিজ্ঞানের ভাষায় মস্তিষ্কের সংকোচন কমিয়ে দেয়।

৬।শাকসবজি
প্রতিদিনের খাদ্য তালিকায় রাখুন সবুজ শাক-সবজি। এদের মাঝে থাকা প্রোটেক্টিভ এন্টি-অক্সিডেন্ট মস্তিষ্ককে করে তোলে আরো অধিক কার্যক্ষম।

৭। বাদাম
সহজলভ্য এই খাবারে আছে ভিটামিন ই, যা হচ্ছে আরো একটি এন্টি-অক্সিডেন্ট। খুব সহজেই পাওয়া যায় এই বাদামকে প্রতিদিন রাখুন খাবার তালিকায়।

প্রতিদিন এই খাবারগুলোর সুষম পরিমাণে খেলে মস্তিষ্কের কার্যক্ষমতা বেড়ে যাবে বহু গুণ! তো আর দেরি কেন, শুরু হোক এখনই!