মেইন ম্যেনু

আফ্রিদিকে বাধ্য করছে পিসিবি!

বয়স তার ৩৭। এ বয়সে ব্যাটে ঝড় তুলতে পারেন তিনি। প্রতিপক্ষ ব্যাটসম্যানকে চমকেও দিতে পারেন। তবে আগের মতো ব্যাটে-বলে ধারটা ধারাবাহিক নয়।

যে কারণে শহীদ খান আফ্রিদিকে হয়তো টি-টোয়েন্টি অবসর নিতে বাধ্য করছে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড!

সামনেই রয়েছে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ। ওই সিরিজে আফ্রিদিকে স্কোয়াডে রাখতে পারে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড।

তবে শর্ত সাপেক্ষে। কী সেই শর্ত? যদি আগামী ২৩, ২৪ ও ২৭ সেপ্টেম্বর আরব আমিরাতে অনুষ্ঠিতব্য

সিরিজে আনুষ্ঠানিকভাবে বিদায় বলে দেন তবেই হয়তো। প্রায় ২০ বছর ধরে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলা আফ্রিদি এখনই অবসর নিতে নারাজ।

কয়েকদিন আগে তিনি বলেছিলেন, ক্রিকেট খেলা চালিয়ে যেতে চান এবং সুযোগ পেলে জাতীয় দলের জন্য খেলতে প্রস্তুত তিনি।

যদিও জাতীয় দলের নির্বাচকরা তাকে আর দলে ফেরাতে চাচ্ছেন না। তারা চাচ্ছেন, সম্মানের সঙ্গে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে বিদায় জানাবেন আফ্রিদি।

পাকিস্তানের নির্বাচকরা মনে করছেন, ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে আসন্ন টি-২০ সিরিজই হবে আফ্রিদির শেষ সিরিজ! তাতে সম্মানের সঙ্গে অবসর গ্রহণের সুযোগও পাচ্ছেন তিনি।

এমনটা কেন চাচ্ছে পাকিস্তান বোর্ড? তাদের ইচ্ছার জায়গাটা একদম পরিষ্কার। আগামী টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের জন্য একটা নতুন স্কোয়াড গড়ে তুলতে চাচ্ছেন নির্বাচকরা।

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজে আফ্রিদিকে অতিরিক্ত সদস্য হিসেবে দলে নেয়া হবে এবং সিরিজ খেলেই অবসরের ঘোষণা দিলে আফ্রিদির জন্য এক স্মরণীয় বিদায়ী সম্বর্ধনার ব্যবস্থা করবে পিসিবি।