মেইন ম্যেনু

আবারও জনসমক্ষে কিংবদন্তী কাস্ত্রো

আবারও জনসমক্ষে এসেছেন ফিদেল কাস্ত্রো, স্বল্প সময়ের ব্যবধানে দুই বার গণমাধ্যমের সামনে আসার দৃষ্টান্ত তার নেই। রাজধানী হাভানায় পনির নির্মাতাদের সঙ্গে এক সৌজন্য সাক্ষাতে আসেন কাস্ত্রো, এটা তার ব্যক্তিগত ঝোঁক। অসুস্থ ফিদেল কাস্ত্রো বর্তমানে ছোটো ভাই রাউল কাস্ত্রোর ওপর ক্ষমতার ভার ছেড়ে দিয়ে বর্তমানে সুস্থতা লাভের জন্যে যুঝছেন।

আরও একদিক থেকে এ গণমাধ্যম-সন্নিধান গুরুত্ব রাখে; যুক্তরাষ্ট্র ও কিউবা ২০ জুলাই নিজ নিজ দেশে পররাষ্ট্রের দূতাবাস খোলার সিদ্ধান্ত নিয়েছে, এমন এক সময়ে তিনি আবারও জনসমক্ষে এলেন। জীবন্ত কিংবদন্তী ফিদেল কাস্ত্রো ২০০৬ সালের পর থেকে গণমাধ্যমের সামনে এসেছেন খুবই কমসংখ্যক সময়, যে কারণে তাকে প্রচারমাধ্যমে দেখা গেলেই তা আলোচনার জন্ম দেয়। কাস্ত্রোর কিউবার সঙ্গে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের পুরনো স্নায়ুযুদ্ধের প্রসঙ্গ এলে অনেকেই এমত ব্যক্ত করে থাকেন, মূলত ১৯৬০ থেকে আরম্ভ হওয়া ঐ স্নায়ুযুদ্ধের ধারাবহিকতায় হয়ত ফিদেলের হাতে ওবামার সঙ্গে মৈত্রী রচিত হতো না।

বরং গত বছরের ১৭ ডিসেম্বরে এককালের ‘রক্তপিপাসু’ রাউল কাস্ত্রোর হাত বলেই বন্ধুত্ব এতোটা আগ বেড়েছে। এবং ফিদেল নিজের অবস্থানও পরিষ্কার করেছেন মৈত্রী তৈরি হওয়ার পর, স্পষ্টতই তিনি বিষয়টি সম্পর্কে অনেকটাই নেতিবাচক ধারণা পোষণ করে থাকেন, যদিও বর্তমানে মেনে নিয়েছেন নয়া রাষ্ট্রনীতি।

কিউবা ও যুক্তরাষ্ট্র সমঝোতায় আসার পর তিনি রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যম গ্রানমায় লিখেছিলেন, যুক্তরাষ্ট্রের নীতিতে আমি কখনও আস্থা রাখি না। কিন্তু তাই বলে এটাও নয় যে আমি সংঘাতের শান্তিকামী সমাধানে বিশ্বাসী নই।