মেইন ম্যেনু

আবারো দল বানালেন নাজমুল হুদা

বিএনপি তৃণমূল পর্যায়ের নেতাকর্মীদের নিয়ে নতুন রাজনৈতিক দল ‘তৃণমূল বিএনপির’ যাত্রা শুরুর ঘোষণা দিয়েছেন ব্যারিস্টার নাজমুল হুদা।

শুক্রবার সকালে রাজধানীর গুলশানে হোটেল ওয়েস্টিনে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি নতুন দলের ঘোষণা দেন।

নিজেকে ‘তৃণমূল বিএনপির’ আহ্ববায়ক উল্লেখ করেন নাজমুল হুদা জানান, বিএনপির তৃণমূল পর্যায়ের নেতারাই তৃণমূল বিএনপির নেতৃত্বে থাকবে। এই দলের প্রতীক হবে ধানের ছড়া।

নিজেকে বিএনপির অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা সদস্য দাবি করে তিনি বলেন, ‘বিএনপি নেতাদের ভুলের কারণে এই দলটিকে নিশ্চিহ্ন হতে দেওয়া যাবে না। বিএনপি নেতাদের সিদ্ধান্তহীনতা, দ্বিধাদ্বন্দ্বের কারণে বিএনপি আজ মুখ থুবড়ে পড়েছে। বিএনপির একজন নিবেদিত কর্মী হিসেবে আমি মনে করি, নেতানেত্রীদের ভুলের কারণে কোটি কোটি মানুষের সমর্থনপুষ্ট বিএনপিকে নিশ্চিহ্ন হতে দেওয়া যাবে না। এ কারণেই আজ আমি তৃণমূল বিএনপির যাত্রা ঘোষণা করেছি। তৃণমূলের নেতারাই এর নেতৃত্ব দেবেন।’

মাঠ পর্যায়ে বিএনপির ‘ত্রাহী অবস্থা’ উল্লেখ তিনি বলেন,‘দল পরিচালিত হচ্ছে উত্তরাধিকার সূত্রে লন্ডন থেকে নির্দেশিত পথে। বিএনপি’র প্রতিষ্ঠাতা প্রয়াত মুক্তিযোদ্ধা জিয়াউর রহমানের রাজনীতিতে স্বজন-বিরোধী কঠোর অবস্থান বিএনপিকে সম্পূর্ণভাবে শাসকগোষ্ঠীর আত্মীয়দের প্রভাবমুক্ত রেখেছিল। কিন্তু দুঃখজনক হলেও সত্য যে, বেগম খালেদা জিয়ার রাজনীতি তার ঠিক বিপরীত। কেন্দ্রীয় কমিটি গঠনের ক্ষেত্রেই নয়, সরকারের মন্ত্রী গঠন এমনকি সেনাবাহিনী প্রধান নিয়োগেও দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার সিদ্ধান্তে নিকট আত্মীয়দের প্রচণ্ড প্রভাব প্রতিফলিত হতে দেখা গেছে।’

নাজমুল হুদা জানান, একজন চেয়ারম্যান, পাঁচজন ভাইস চেয়ারম্যান, একজন সাধারণ সম্পাদক, সাতজন যুগ্ম সম্পাদক ও সাতজন সাংগঠনিক সম্পাদকসহ তৃণমূল বিএনপির ২০১ সদস্যের জাতীয় নির্বাহী কমিটি গঠন করা হবে। এরপর আগামী ১ অক্টোবর ২১ সদস্যের স্থায়ী কমিটি গঠন করা হবে। এই তৃণমূল বিএনপি বাংলাদেশ ন্যাশনাল অ্যালায়েন্সের নেতৃত্ব দেবে।

নতুন রাজনৈতিক দলটির নাম বা প্রতীক নিয়ে আইনি জটিলতা হবে কি-না- এমন প্রশ্নের জবাবে ব্যারিস্টার হুদা বলেন, ‘আইনি জটিলতা হতে পারে। আমি নিজেও একজন আইনজীবী। আইনি লড়াই চালাবো। ধানের ছড়া প্রতীক হিসেবে না পেলে পাট প্রতীক করা হবে।’