মেইন ম্যেনু

আবারো প্রচার হবে আলিফ লায়লা

হয়তো অনেকেই ফিরে যাবেন অতীতে। কেউ দেখতে পাবেন কৈশোর, কেউবা আরো ছোট। সেই সময়টাতে রাত ৮টা খবরের পর বিটিভির সামনে বসার জন্য অধীর অপেক্ষা চলতো প্রতি শুক্রবারের সারা দিনভর। সে কেবল আলিফ লায়লার টানে।

সেই সময় তুমুল জনপ্রিয়তা পেয়েছিলো এই সিরিজটি। বাচ্চাদের লেখার খাতাতেও উঠে এসেছিলো আলিফ লায়লার হিরো- সৎ মানুষ সিন্দাবাদ। উঠে এসেছিলো রহস্যময় সব ভিলেনরা।

বিটিভির পর একুশে টেলিভিশনও প্রচার করেছিলো ‘আলিফ লায়লা’। আরব্য রজনীর গল্প অবলম্বনে নির্মিত তুমুল জনপ্রিয় সেই ধারাবাহিকর আবারও দেখা যাবে টিভি পর্দায়! একদম তাই। আরব রূপকথার এ প্রশংসিত সিরিজটি এবার প্রচারে আনছে গাজী স্যাটেলাইট টেলিভিশন লিমিটেড (জিটিভি)। আগামী নভেম্বর থেকে এটি প্রচার করবে বলে নিশ্চিত করেছে টেলিভিশনট কর্তৃপক্ষ।

তারা জানায়, ভারতীয় প্রতিষ্ঠান সাগর ফিল্মস প্রাইভেট লিমিটেডের নির্মিত পুরনো সেই সিরিজটিই প্রচার করবে জিটিভি। সপ্তাহে একাধিক দিন এটি প্রচার হবে।

আলিফ লায়লা ইসলামী সভ্যতার অন্যতম একটি সাহিত্য নিদর্শন। খলিফা হারুন-অর-রশীদের খিলাফতকালে রাজধানী বাগদাদের বিখ্যাত সাহিত্যিকরা লেখেন এই কাহিনি। যা পরবর্তীতে ‘আরব্য রজনী’ নামে সারাবিশ্বে খ্যাতি অর্জন করে।

এই সিরিজের প্রধান গল্প ও চরিত্রগুলোর মধ্যে রয়েছে- আলাদিনের জাদুর চেরাগ, আলী বাবা ও চল্লিশ চোর, আল্লাহর উপর আস্থাবান সাহসী নাবিক সিন্দবাদের যাত্রা, সাহসী যুবক জালাল তালেবর, অত্যাচারী ডাকাত কেহেরমান এবং মায়াময়ী জাদুকরী মালিকা হামিরার কাহিনি।