মেইন ম্যেনু

আবারো বিএসএফের নির্যাতনের শিকার বাংলাদেশি গরু রাখাল

আবারো বিএসএফের নির্যাতনের শিকার হলো বাংলাদেশি এক গরু রাখাল। সাতক্ষীরার কলারোয়া সীমান্তের বিপরীতে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিএসএফ ওই গরু রাখালকে শারীরিক নির্যাতনের পর লাথি মেরে সীমান্ত নদীতে ফেলে দেয়। মঙ্গলবার ভোরে উপজেলার চান্দুড়িয়া সীমান্তের বিপরীতে ভারতের কালাঞ্চি এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। আহত গরু রাখাল রাম দাস (১৮) যশোর জেলার শার্শা উপজেলার আমলা গ্রামের পালপাড়ার সুদেবের পুত্র বলে জানা গেছে।

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

সীমান্তের একাধিক সূত্র জানায়, আমলা গ্রামের রাম দাস, কদম আলীর পুত্র সিরাজুল (৫০), সিরাজুলের পুত্র খলিল (২৫)সহ কয়েকজন গরু রাখাল সোমবার দিবাগত রাতে সীমান্তবর্তী চান্দুড়িয়ার ১৭/৮আর বি পিলারের নিকট দিয়ে ইছামতি নদী পেরিয়ে ভারতে গিয়ে গরু আনতে যায়। গরু নিয়ে ফেরার পথে চান্দুড়িয়ার বিপরীতে ভারতের কালাঞ্চি বিএসএফ ক্যাম্পের সদস্যরা ১টি গরুসহ রাখাল রাম দাসকে ধরে মারপিট করে। নিজেকে ‘হিন্দু’ বলে পরিচয় দেয়ার পর বিএসএফ সদস্যরা ওই গরু রাখালকে লাথি মেরে সীমান্ত নির্ধারণকারী নদী ‘ইছামতি’তে ফেলে দেয়। এসময় অপর গরু রাখালরা পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়।

পরে স্থানীয়রা ইছামতির পাড়ে কালাঞ্চি ডিপঘরের পাশ থেকে আহতাবস্থায় তাকে উদ্ধার করে পাশ্র্ববর্তী গয়ড়ার একটি ক্লিনিকে নিয়ে যায়। তার অবস্থা গুরুতর না হওয়ায় ক্লিনিকের পরিচালক ও স্থানীয় চন্দনপুর ইউপি চেয়ারম্যান রমজান আলী প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে তাকে বাড়িতে পাঠিয়েছেন বলে জানান। লোকমুখে এমন ঘটনা শুনেছেন বলে চান্দুড়িয়া বিওপির নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক বিজিবি সদস্য সাংবাদিকদের জানিয়েছেন।