মেইন ম্যেনু

আমন ধানে পোকার আক্রমণ, মহা বিপদে পড়েছেন সাতক্ষীরার ধান চাষীরা

সাতক্ষীরা জেলার আমন ধান চাষীরা পড়েছেন মহা বিপদে। এবারের মৌসূমে চাষ করা আমন ধানে ব্যাপক ভাবে পোকার আক্রমন দেখা দিয়েছে। এখন ধানের থোড় আসার সময়। এর এ সময়ে ধান গাছে পাতা পোড়ানো পোকার আক্রমণে জেলার হাজারো চাষীরা পড়েছেন মহা বিপদে।

সাতক্ষীরা জেলার ৭ টি উপজেলার বিভিন্ন অঞ্চলে খোজ নিয়ে জানা গেছে, অতি বৃষ্টি, বীজ ধানের অভাব, অর্থের অভাব সহ বিভিন্ন কারনে এবাবেরর আমন মৌসূমে জেলায় ধান চাষের লক্ষ্য মাত্রা অর্জিত হয়নি। তার পরও ভাল ফলন হবে, ধানের দাম বেশী হাবে এই আশা নিয়ে কৃষকেরা আমন ধানের চাষ করেছিলেন। কিন্তু সময় মত সঠিক পরিচর্যা,সঠিক পরামর্শ না পাওয়া ও এক ধরনের অসাধু সার ও কীটনাশক ব্যবসায়ীদের পাল্লায় পড়ে চাষী পড়েছেন এই বিপদে।

সদর উপজেলার ছয়ঘরিয়া গ্রামের চাষী মোহাম্মদ আলীর সাথে কথা বললে তিনি জানান, মাধবকাটি থেকে লাবসা মোড় পর্যন্ত রাস্তার দু ধারে প্রায় সাড়ে ৪ শত বিঘা জমিতে হঠাৎ করে পাতা মোড়ানো পোকার আক্রমন দেখা দেয়। এ ব্যপারে স্থানীয় ব্যবসায়ীদের কাছে গেলে তারা একটা ঔষধ দেয়। গত ২১ দিনে ৩ বার স্প্রে করে ও ঐ পোকা মারতে পারেনি এলাকার কৃষকেরা।

এ ব্যাপারে গত শনিবার সদর কৃষি কর্মকর্তা শিকদার মোঃ মোহাইমেনুল ইসলামের সাথে কথা বললে, তিনি তাৎক্ষনিক ভাবে ছয়ঘরিয়া মাঠে আসেন ধানের অবস্থা দেখতে। এ সময় উপস্থিত কৃষকদের কে ফসলে রোগ বালাই হওয়ার সাথে সাথে ব্যবসায়ীদের কাছে না গিয়ে কৃষি অফিসে যাওয়ার এবং ধানের পোকা মারার জন্য সঠিক পরামর্শ দেন।

উল্লেখ এবারের আমন মৌসূমে সাতক্ষীরা জেলায় ৯ হাজার ২ হেক্টর জমিতে আমন ধান চাষের লক্ষ্য মাত্রা ধরা হয়ে ছিল। কিন্ত অমিরাম বৃষ্টি,ধানের দাম কম, কৃষকের নগদ অর্থের অভাব সহ নানা কারনে সে লক্ষ্য মাত্রা অর্জিত হয়নি।

সাতক্ষীরা জেলার হাজারো আমন ধান চাষীরা সার কীটনাশকের দাম কমিয়ে তাদের উৎপাদিত ফসলের দাম বৃর্দ্ধি করে দেওয়ার জন্য বর্তমান কৃষি বান্ধব সরকারের নিকট জোর দাবি জানিয়েছেন।