মেইন ম্যেনু

আমির আমার ভাইয়ের মতো : হাফিজ

স্পট ফিক্সিংয়ের নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে মোহাম্মদ আমির যখন পাকিস্তান দলে ডাক পেলেন এবং অনুশীলন ক্যাম্পে যোগ দেন, তখন তার বেশ বিরোধীতা করেছিলেন মোহাম্মদ হাফিজ এবং আজহার আলি। এ দু’জন তখন প্রস্তুতি ক্যাম্প থেকেই নিজেদের প্রত্যাহার করে নিয়েছিলেন। মোহাম্মদ হাফিজই সবচেয়ে বেশি বিরোধি ছিলেন মোহাম্মদ আমিরের। বিপিএলে চট্টগ্রাম ভাইকিংসের হয়ে খেলতে আসেননি তিনি আমিরের কারণে। এমনকি আমির খেললে তিনি পাকিস্তান দলে আর না খেলারও ঘোষণা দিয়েছিলেন।

শেষ পর্যন্ত পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের (পিসিবি) চেয়ারম্যান শাহরিয়ার খানের হস্তক্ষেপে হাফিজ আর আজহার আলি মিলে ক্যাম্পে ফেরেন। শাহরিয়ার খানকে নিশ্চয়তা দিতে হয়েছে যে, আমিরের অন্তর্ভূক্তিতে দলের ভাবমুর্তি ক্ষতিগ্রস্থ হবে না কিংবা কোন অনাকাংখিত ঘটনাও ঘটবে না।

অথচ সেই মোহাম্মদ হাফিজই এখন বছলেন, ‘আমির আমার ভাইয়ের মত। দলের সবাই আমিরকে ছোটভাই হিসেবে গ্রহণ করেছে। সবাই তাকে সহযোগিতা করছে। যেন সে নিজের সেরাটা ঢেলে দিতে পারে।’

কেন হঠাৎ মোহাম্মদ হাফিজের এই পরিবর্তন? ওই সময় কেন বিরোধিতা করেছিলেন তিনি? সে ব্যাখ্যা দিয়েছেন। বলেছেন, ‘আমার বিশ্বাস, পুরো ইস্যুটা নিয়ে কিছু ভুল বোঝাবুঝি তৈরী হয়েছে। আসলে আমি তখন কোন নির্দিষ্ট ব্যাক্তির বিরোধিতা করিনি। আমি বিরোধিতা করেছিলাম এমন একটা বিষয়ের যেটা সত্যিকারার্থেই দলের এবং দেশের ভাবমুর্তির জন্য ক্ষতিকারক। দুর্নীতিতে জড়িত কেউ যদি দলে থাকে তাহলে সেটা সবার জন্য নেতিবাচক এবং নৈতিকভাবে আমরা দুর্বল হয়ে যাবো। সে নৈতিকতা টিকিয়ে রাখার জন্যই মূলতঃ সবার আগে আমি হাত উঠাই এবং এই সিস্টেমের বিরোধিতা করি।’

নিশ্চয়তা পাওয়ার পর হাফিজ এবং আজহার আলিরা দলে ফেরেন। এখন তারাই আমিরের সঙ্গে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে লড়াই করছেন।