মেইন ম্যেনু

আমির খানের ইনটার্ন হতে চান? দেরি করলে পস্তাবেন

তাঁর অভিনয় দক্ষতা এবং কর্মপদ্ধতি বরাবরই আকর্ষণ করেছে বিভিন্ন মিডিয়া এবং চলচ্চিত্র শিক্ষার্থীদের। তাঁর কাছ থেকে কাজ শেখার জন্যেও দফায় দফায় ইচ্ছে প্রকাশ করেছিলেন অনেক শিক্ষার্থী।

হ্যাঁ, ঠিকই পড়েছেন। কোন সরকারি বা বেসরকারি অফিসে নয়, খোদ আমির খানের ‘ইনটার্ন’ হওয়ার সুযোগ এবার আপনার সামনে। যদি ‘চলচ্চিত্র’ শব্দটা আগাগোড়াই খুব পছন্দের হয়ে থাকে এবং ভবিষ্যতে এরই কোন ক্ষেত্রকে পেশা বানানোর জন্য ভাবছেন, তবে আপনাকে সুযোগ করে দেবেন এই জনপ্রিয় অভিনেতা।

তাঁর অভিনয় দক্ষতা এবং কর্মপদ্ধতি বরাবরই আকর্ষণ করেছে বিভিন্ন মিডিয়া এবং চলচ্চিত্র শিক্ষার্থীদের। হিন্দিতে প্রতি বছর নেহাত কম সংখ্যক ছবি হয় না। তবে এ যাবৎকালে তাঁর অভিনীত সব কটি ছবিই কীভাবে সাফল্যের শিখরে উঠেছে, এ নিয়ে শিক্ষার্থীদের বহু কৌতুহল তিনি মিটিয়েছেন এ পর্যন্ত। শুধু তাই নয়, তাঁর কাছ থেকে কাজ শেখার জন্যেও দফায় দফায় ইচ্ছে প্রকাশ করেছেন অনেক শিক্ষার্থী।

এক সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমের তথ্য অনুযায়ী শেষমেষ এই অভিনেতা ঠিকই করেছেন তিনি ইনটার্ন নেবেন যারা সরাসরি তাঁর সঙ্গে থেকে কাজ শিখতে পারবে। তবে বছরে দুজন ইনটার্ন নেবেন বলেই জানা গিয়েছে। পর্দার পেছনের যাবতীয় ভূমিকায় তিনি সঙ্গে রাখবেন ইন্টার্নদের।

শ্যুটিং, মিটিং, স্ক্রিপ্ট পাঠ থেকে শুরু করে রিহার্সাল পর্যন্ত। সূত্রের খবর, ফতেমা সানা শেখ (আমির খানের পরবর্তী ছবিতে গীতা ফোগাত এর ভূমিকায় দেখা যাবে এঁকে) এবং সান্য মালহোত্র (ওই একই ছবিতে বাবিতা কুমারী-র চরিত্রে দেখা যাবে) সর্বপ্রথম তাঁর ইন্টার্ন হওয়ার জন্য ইচ্ছে প্রকাশ করে। আমির খান নিজে তাদের অভিনয় নিয়ে প্রশিক্ষণ দেবেন আগামি মার্চ পর্যন্ত।

তাদের প্রশিক্ষণ শেষ হলে নতুন ইনটার্ন আসবে এপ্রিল থেকে। ইচ্ছুক ব্যক্তিরা মুম্বইয়ের অফিসে গিয়ে যোগাযোগ করতে পারেন। জানা গিয়েছে, অভিনেতা তাঁর এত বছরের অভিজ্ঞতা নতুনদের সঙ্গে ভাগ করে নিতেই এই পদক্ষেপ নিয়েছেন।