মেইন ম্যেনু

আমি ধর্ষিত, কারণ বিয়ের রাতেই আমাকে…

বিয়ে মানে কি শুধুই সেক্স করার ছাড়পত্র? সামাজিক স্বীকৃতি নিয়ে ‘বৈধ’ তকমা জুটিয়ে স্ত্রী-কে যখন খুশি বিছানায় আনাকেই কি বিয়ে বলে? সহজ স্বাভাবিক ভাষায় এর উত্তর ‘না’ হবে। তবে দেশের সামগ্রিক চিত্র দেখলে রীতি মতো হতাশ হতে হবে। তার মধ্যে দেশের সংসদেও এ নিয়ে তর্ক হয়েছে। অনেক মাননীয় সাংসদদের মত, এ দেশের কথা বিচার করলে ‘বৈবাহিক ধর্ষণ’ নামক কোনও বস্তু নেই। সত্যিই কি তাই?

বৈবাহিক ধর্ষণের কালো কথা, কেউ কি শুনবে! পরিসংখ্যান বলছে, সারা দেশে যত বৈবাহিক ধর্ষণের ঘটনা ঘটে, তার মধ্যে মাত্র এক শতাংশ অভিযোগ থানায় জমা পড়ে। অভিযোগ করেও বিশেষ লাভ হয় না। এঁদের মধ্যে অনেকেই বিনা বাধায় বেকসুর খালাস হয়ে যান। কেন্দ্রীয় নারী এবং শিশু কল্যাণ মন্ত্রী মানেকা গান্ধীর কথায়, ‘আন্তর্জাতিক ভাবে যা বৈবাহিক ধর্ষণ বলে ধরা হয়, তা ভারতের ক্ষেত্রে পুরোপুরি প্রযোজ্য নয়।

এ পেছনে শিক্ষাগত যোগ্যতা, দারিদ্র, ধর্মীয় বিশ্বাস, সামাজিক দৃষ্টিভঙ্গির মতো বিষয় রয়েছে। বিয়ের মানে এখানে অনেক কিছুর সমাহার। আমি ধর্ষিত, কারণ বিয়ের রাতেই আমাকে জাস্ট ছিঁড়ে খেল ও! তাঁর মতের সঙ্গে এই ছোট সিনেমাটির মত মোটেই মিল খায় না। যেখানে স্বামীর কাছে নিত্যদিন ধর্ষিতা স্ত্রী ভয়ানক মানসিক যন্ত্রণা নিয়ে দিন কাটান। সুত্র-এই সময়