মেইন ম্যেনু

আম ব্যাবসায়ীদের অনিয়ম আর অত্যাচারে অতিষ্ঠ সাপাহারের আম চাষীরা

গোলাপ খন্দকার সাপাহার (নওগাঁ) প্রতিনিধি: নওগাঁর সাপাহারে আম ব্যাবস্যায়ীদের অত্যাচারে অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে উপজেলার আম চাষীরা।

উপজেলার অধিকাংশ কৃষকরা ধানের সঠিক মূল্য না পাওয়ার কারনে ধান চাষ বাদ দিয়ে অধিক লাভের আশায় ঝুকে পড়েছেন আম চাষের প্রতি। বর্তমান বাজারে আমের উচ্চমূল্য থাকলেও কিছু কিছু অসাধু আম ব্যাবসায়ীদের কারনে বিভিন্ন প্রতিকুলতার মধ্যে পড়তে হচ্ছে আম চাষীদের ।

আম চাষী একাধিক কৃষক জানান, আমরা আম বিক্রয়য়ের জন্য আম বাজারে প্রবেশ করার সাথে সাথে আম বাজারের আবর্জনা পরিস্কারকারী সুইপাররা গাড়ি থেকে ৫ থেকে ৭ টি আম তুলে নেয়।

গত বছর ৪৫ কেজিতে মণ ওজন নেওয়া হলেও এবার ৪৮ থেকে ৫০ কেজিতে একমণ ধরে আম ক্রয় করা হচ্ছে। আড়ৎ থেকে বের হয়ে আসার সময় ৩০ থেকে ৫০ টাকা হারে টোল আদায় করা হচ্ছে বলে অভিযোগ জানান আম চাষীরা।

আম ব্যাবসায়ীরা গাড়িতে থাকা সকল আম দর-দাম করে নিয়ে আড়ৎ এ যাওয়ার পর সেখান থেকে সবচাইতে বড় সাইজ ভাল আম গুলো মেপে নেয়ার পর মাঝারি ও ছোট আম গুলো নিতে চায় না তার কিছুক্ষন পর সেই আম গুলো সল্পমূল্যে আমাদের নিকট থেকে কিনে নেয়, নেওয়ার পর আবার ঐ বাছাইকৃত বড় আমের সাথে মিস করে।

ওজন দেওয়ার জন্য দাঁড়ি প্রতি ৬০ টাকা ও দাঁড়ি প্রতি ওজন গণনার জন্য বাছাইকৃত বড় একটি আম আলাদা করে রাখা হয়। যতটি দাঁড়ি মাপা হয় ততটি আম রেখে পরে তা লেবাররা ভাগ করে নেয় ।

উপজেলার আম চাষী কৃষকগণ জানান, আমের ফলন ভাল হওয়ায় ও বাজার উচ্চমূল্য থাকায় সাপাহারের আম বিশ্ব বাজারে স্থান পাবে এবং দেশের মধ্যে আম চাষে শীর্ষ স্থান লাভ করবে সাপাহার।

এরুপ ঘটনার তিব্র নিন্দা জানিয়ে, এলাকার অসাধু ব্যাবসায়ী ও বাজারের বিভিন্ন সমস্যার সমাধান ও প্রশাসনের সহযোগিতা কামনা করেছেন এলাকার আম চাষীরা।

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মুহাম্মদ মনিরুজ্জামান জানান, আমি অভিযানে গেলে আম ব্যবসায়ীরা সতর্ক হয়ে যায় । তবে যদি কোন রকম অনিয়ম বা দূর্নীতি ধরা পড়ে তাহলে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহন হবে।