মেইন ম্যেনু

‘আরামবাগ-কেরানীগঞ্জ’ নতুন ফ্লাইওভার হচ্ছে

ঢাকা মহানগরীর যানজট নিরসনে আরামবাগে নটরডেম কলেজের সামনে থেকে কোরানীগঞ্জের কদমতলী সার্কেল পর্যন্ত একটি উড়াল সড়ক (ফ্লাইওভার) নির্মাণের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

প্রায় আড়াই হাজার কোটি টাকা ব্যয়ে এ উড়াল সড়কের নির্মাণকাজ বাস্তবায়ন করবে রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ বা রাজউক।

বুধবার নগর ভবনে ঢাকা যানবাহন সমন্বয় কর্তৃপক্ষ-ডিটিসিএ’র অষ্টম বোর্ড সভাশেষে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের এ কথা জানান।

এ সময় মন্ত্রী বলেন, রাজধানীর মগবাজার-মৌচাক ফ্লাইওভারের সাতরাস্তা থেকে হলি ফ্যামিলি হাসপাতাল পর্যন্ত দুই কিলোমিটার অংশ আগামী ৩০ মার্চ যানবাহন চলাচলের জন্য উন্মুক্ত করে দেওয়া হবে।

এ ছাড়া ফ্লাইওভারের বাংলামোটর থেকে রাজারবাগ পর্যন্ত এবং রামপুরা আবুল হোটেল থেকে শান্তিনগর পর্যন্ত অংশ চলতি বছরের ডিসেম্বর নাগাদ শেষে হবে।

সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রীর সভাপতিত্বে সভায় গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন, ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আনিসুল হক ও সাঈদ খোকন, সংসদ সদস্য সাগুফতা ইয়াসমিন এমিলি, ডা. এনামুর রহমান ও নুরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ুন উপস্থিত ছিলেন।

সভাশেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী জানান, আগামী এপ্রিলের শেষ সপ্তাহে মেট্রোরেলের নির্মাণকাজ শুরু হবে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আনুষ্ঠানিকভাবে মেট্রোরেল প্রকল্পের নির্মাণকাজের সূচনা করবেন।

মন্ত্রী আরও জানান, নগরবাসীর সুবিধার্থে ও যানজট নিরসনে আরও দু’টি মেট্রোরেল নির্মাণের প্রস্তুতি শুরু করেছে সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়। ইতোমধ্যে মেট্রোরেল রুট-১ ও রুট-৫ নির্মাণের সম্ভাব্যতা যাচাইয়ে জাইকা’র সঙ্গে গত ১০ মার্চ মিনিটস্ অব ডিসকাসন বা এমওডি সই করা হয়েছে।

তিনি বলেন, উত্তরা হতে শাপলা চত্বর পর্যন্ত মেট্রোরেলের ডিপো নির্মাণসহ আনুসঙ্গিক কাজের চুক্তি স্বাক্ষর হতে যাচ্ছে আগামী ২৭ মার্চ। এর মধ্যদিয়ে দেশের যোগাযোগখাতে আরও একটি স্বপ্নের বাস্তবায়ন শুরু হতে যাচ্ছে বলে তিনি মত প্রকাশ করেন।

সভায় সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের সচিব এমএএন ছিদ্দিক, রেলপথ মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. ফিরোজ সালাহ্ উদ্দিন, ডিটিসিএ’র নির্বাহী পরিচালক মো. কায়কোবাদ হোসনসহ ডিটিসিএ পরিচালনা পরিষদের সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।